x

এইমাত্র

  •  ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউনের মেয়াদ বাড়িয়েছে সরকার
  •  সৌদিতে ১৭ মে থেকে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচল শুরু
  •  ১৭ মে থেকে সৌদি আরবে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালুর ঘোষণা
  •  সাতদিনের রিমান্ডে হেফাজত নেতা মামুনুল হক

দর্শকদের সামনে বায়ার্নকে শেষ উপহার দিয়ে গেলেন মার্টিনেজ

প্রকাশ : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৫:৪৩

করোনা-শঙ্কার মধ্যেই অবশেষে ইউরোপিয়ান ফুটবলে দেখা মিলল মাঠের দর্শকের। এই দর্শকের উত্তেজনার মধ্যেই উয়েফা সুপার কাপের ফাইনালে স্প্যানিশ ডিফেন্ডার হাভি মার্টিনেজের শেষ মুহুর্তের গোলে সেভিয়াকে হারিয়ে শিরোপা চ্যাম্পিয়ন হয়েছে জার্মানা ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখ।

বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে বুদাপেস্টের পুসকাস অ্যারেনায় সেভিয়াকে ২-১ গোলে হারিয়েছে হ্যান্সি ফ্লিকের শিষ্যরা। এই কোচের অধিনে 'কোয়াড্রাপল' জিতেছে বায়ার্ন।

৬৭ হাজার দর্শক ধারণক্ষমতা সম্পন্ন হাঙ্গেরির রাজধানী বুদাপেস্টের পুসকাস অ্যারেনায় প্রায় ২০ হাজার দর্শকের উপস্থিতিতে গড়িয়েছে এবারের উয়েফা সুপার কাপের ফাইনাল। করোনা মহামারিতে স্থগিত হওয়ার পর ইউরোপীয় শীর্ষ ফুটবল ম্যাচে এই প্রথম দর্শকের উপস্থিতি দেখা গেল। আর এই দর্শকরা গ্যালারিতে বসে রোমাঞ্চকর এক ফাইনাল দেখার সৌভাগ্য অর্জন করলেন।

এদিন শুরু থেকেই গোটা ম্যাচে দুর্দান্ত খেলেছে সেভিয়া। ইউরোপা লিগের সেমিতে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও ফাইনালে ইন্টার মিলানকে হারানো এই দল গত রাতেও হাঙ্গেরির বুদাপেস্ট অ্যারেনায় নিয়মিত চোখ রাঙাচ্ছিল বায়ার্নকে। ম্যাচের ১১ মিনিটে বার্সা থেকে সদ্যই সেভিয়ায় ফেরা ক্রোয়েশিয়ান মিডফিল্ডার ইভান রাকিটিচকে বায়ার্নের ডিফেন্ডার ডেভিড আলাবা ডি-বক্সে ফেলে দিলে পেনাল্টি পায় সেভিয়া। আর সুযোগ কাজে লাগিয়ে অসাধারণ এক শটে লক্ষ্যভেদ করেন সেভিয়ার আর্জেন্টাইন উইঙ্গার লুকাস ওকাম্পোস।

পরে ম্যাচের ৩৪ মিনিটে লেওন গোরেৎস্কার গোলে সমতায় ফেরে বায়ার্ন। রবার্ট লেভানডভস্কির দুর্দান্ত পাস থেকে গোলটি করেন জার্মান মিডফিল্ডার লিওন গোরেৎজকা। পরে বাকি সময়ে আর কোন গোল না হয়ে এই ১-১ গোলের সমাতা নিয়ে বিরতিতে যায় দু’দল।

বিরতি থেকে ফিরে এসে সবচেয়ে বড় সুযোগটা পেয়েছিল সেভিয়া। বদলি খেলোয়াড় ইউসেফ এন-নাসরি বায়ার্নের গোলরক্ষক ম্যানুয়েল নয়্যারকে একা পেয়েও পরাস্ত করতে পারেননি। যদিও শট ঠিকই নিয়েছিলেন ইউসেফ, কিন্তু হালকা ছোঁয়ায় বল বাইরে পাঠিয়ে দেন নয়্যার।

দুই দলের পাল্টাপাল্টি আক্রমণেও নির্ধারিত সময়ে গোলের দেখা পায়নি কোনো দলই। তবে বায়ার্নের বদলি খেলোয়াড় জাভি মার্তিনেস ম্যাচের ১০৪ মিনিটে গিয়ে দুর্দান্ত এক হেডে লক্ষ্যভেদ করেন। আর তাতেই জয় নিশ্চিত হয়ে যায় বাভারিয়ানদের। এই জয়ের মাধ্যমে বায়ার্নের জার্সি গায়ে মার্তিনেসের এটাই শেষ ম্যাচ। স্প্যানিশ মিডফিল্ডার এই গ্রীষ্মেই পুরনো ঠিকানা অ্যাতলেটিক ক্লাবে ফিরছেন। তবে যাওয়ার আগে সারাজীবন মনে রাখার মতো এক কীর্তি গড়ে গেলেন তিনি।

এই জয়ে বাভারিয়ানরা এখন টানা ৩২ ম্যাচে অপরাজিত। গত বছরের নভেম্বরে ফ্লিক দায়িত্ব নেয়ার পর ঘরোয়া লিগ, ক্লাব ডাবল এবং চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতেছে বায়ার্ন মিউনিখ। সর্বশেষ তারা হার দেখেছিল ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে। এরপর ৩২ ম্যাচে ৩১ জয় এবং একটি ড্র।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
আপনি কী মনে করেন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের পদক্ষেপ সন্তোষজনক?