x

এইমাত্র

  •  লকডাউনের সময়সীমা ২২-২৮ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়লো
  •  ফোর্বসের তালিকায় ৯ বাংলাদেশি তরুণ
  •  ভাসানচর নিয়ে আল-জাজিরার প্রতিবেদন মিথ্যা: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
  •  লকডাউনে থাকছে যেসব বিধিনিষেধ
  •  কাল থেকে সীমিত পরিসরে চলবে অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট

‘লকডাউন মানুন, না হলে গুলির নির্দেশ দিতে হতে পারে’

প্রকাশ : ২৬ মার্চ ২০২০, ১৩:৪২

সাহস ডেস্ক

ভরাতের তেলেঙ্গানা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও বলেছেন, ‘এমন অবস্থা যাতে না হয় যে লকডাউন সফল করতে সেনা মোতায়েন করে ২৪ ঘণ্টার জরুরি অবস্থা ঘোষণা করতে হয়। আর এটি হলে দায়িত্বরত সেনাসদস্যের ‘দেখামাত্র গুলি’ করার নির্দেশ দিতে হতে পারে।’

২৫ মার্চ (বুধবার) তেলেঙ্গানা রাজ্যে লকডাউন সফল করতে কঠোর অবস্থানের কথা জানিয়ে এবং রাজ্যের জনগণকে সতর্ক করে একথা বলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী।

গত ২৪ মার্চ (মঙ্গলবার) ভারতজুড়ে ২১ দিনের লকডাউন ঘোষণা করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এর কয়েক ঘণ্টা পর গণমাধ্যমের কাছে এমন সতর্কবাণী দেন কে চন্দ্রশেখর। কার্যকর লকডাউনের জন্য রাজ্যের সব মন্ত্রী, বিধায়ক এবং হায়দরাবাদের স্থানীয় সরকারের কর্মীদের ‘রাস্তায় নেমে’ পুলিশকে সাহায্যের আহ্বান জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

তেলেঙ্গানায় এখন পর্যন্ত ৩৬ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে, এ ছাড়া সন্দেহভাজন হিসেবে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে আরও ১৯ হাজার মানুষকে। লকডাউনের সুযোগে কেউ বেশি দামে পণ্য বিক্রি করলেও ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন চন্দ্রশেখর।

সন্ধ্যা ৭টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত জরুরি অবস্থার কথা উল্লেখ করে মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রশেখর বলেন, এ সময় কাউকেই ঘরের বাইরে চলাচল করতে দেওয়া হবে না। জরুরি প্রয়োজন হলে ১০০ নম্বরে ফোন করতে হবে, পুলিশ সাহায্যে এগিয়ে আসবে। আর সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে সব দোকানপাট বন্ধ করতে হবে। এর এক মিনিট পর কোনো দোকান খোলা পাওয়া গেলে তাঁর লাইসেন্স বাতিল করা হবে।

এ ছাড়া এই রাজ্যে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা সবার পাসপোর্ট জব্দ করার নির্দেশ দিয়েছেন কে চন্দ্রশেখর। তিনি বলেছেন, কেউ কোয়ারেন্টিন না মানলে তার পাসপোর্ট বাতিল করা হবে।

খবর- এনডিটিভি

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত