x

এইমাত্র

  •  লন্ড‌নে নিজ বাসা থেকে অর্থমন্ত্রীর জামাতার মরদেহ উদ্ধার
  •  নুরের বিরুদ্ধে তথ্য-প্রযুক্তি আইনে শাহবাগ থানায় মামলা
  •  হাসপাতালে ভর্তি করোনা রোগীরা দ্রুত মারা যাচ্ছেন: আইইডিসিআর
  •  জ্বর আসেনি, ভালো আছেন খালেদা জিয়া: চিকিৎসক
  •  লকডাউনের মেয়াদ আরও ৭ দিন বাড়তে পারে

বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত

প্রকাশ : ০৯ মার্চ ২০২১, ০২:৩২

সাহস ডেস্ক

বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত হয়েছে। এবার দিবসটির প্রতিপাদ্য ‘করোনা বিশ্বে নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধ করি, সমতা অর্জনে নারী নেতৃত্ব নিশ্চিত করি’। সারাবিশ্বে করোনা ভাইরাসের মহামারীর কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও আজ সরকারি ও বেসরকারিভাবে র‌্যালী, সমাবেশ ও আলোচনা অনুষ্ঠানের মতো বিভিন্ন কর্মসূচিতে দিনটি উদযাপিত হয়েছে।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন।

আন্তর্জাতিক নারী দিবস-২০২১ উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশসহ বিশ্বের সকল নারীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান। এ বছর নারী দিবসের প্রতিপাদ্য অত্যন্ত সময়োপযোগী ও তৎপর্যপূর্ণ বলে তিনি উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, নারীদের যথার্থ মর্যাদা প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি অর্থনৈতিক, সামাজিক, প্রশাসনিক ও রাজনৈতিক ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে সরকার নারী শিক্ষার বিস্তার, নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠা, নারীর ক্ষমতায়নসহ নারীর প্রতি সকল ধরনের সহিংসতা প্রতিরোধে ব্যাপক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার বাণীতে বলেন, বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের সময় বাংলাদেশ আজ নারী-পুরুষের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় উন্নয়নের পথে এগিয়ে চলেছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন,‘ লিঙ্গ সমতা ও নারীর ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ এখন রোল মডেল। আমাদের জাতীয় উন্নয়নের প্রতিটি ক্ষেত্রে নারীর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে আমরা গ্রহণ করেছি নানামুখী পরিকল্পনা ও পদক্ষেপ। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে জেন্ডার রেসপন্সিভ বাজেট প্রণয়নসহ সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় তৃণমূল পর্যায়ের নারীদের আত্মকর্মসংস্থানমূলক কর্মে অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে। হ্রাস পাচ্ছে নারীর দারিদ্র্য। জাতীয় অর্থনীতিতে বৃদ্ধি পাচ্ছে নারীর অংশগ্রহণ।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্ত নারীদের পুনর্বাসন ও ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে ১৯৭২ সালে ‘নারী পুনর্বাসন বোর্ড’ গঠন করেন। তিনি জাতীয় জীবনের সবক্ষেত্রে নারীর সমানাধিকারের বিষয়টি সংবিধানে নিশ্চিত করেন।

এ উপলক্ষে বিশেষ ক্রোড়পত্র ও স্মরণিকা প্রকাশ করা হয়। বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বাংলাদেশ বেতারে সরাসরি সম্প্রচার ও প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়েছে। টেলিভিশন ও রেডিওতে নারীর অধিকার ও সমতা প্রতিষ্ঠায় বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। গুরুত্বপূর্ণ সড়ক পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন দিয়ে সাজানো হয়েছে। এছাড়া দেশের সকল জেলা ও উপজেলায় নারী উন্নয়ন, ক্ষমতায়ন, অধিকার এবং এ বিষয়ে প্রচার ও সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে র‌্যালী, সমাবেশ ও আলোচনা অনুষ্ঠানের কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

এদিকে,আন্তর্জাতিক নারী দিবস ২০২১ উদযাপন উপলক্ষে দেশব্যাপী ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়। এ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে সকাল সাড়ে ১০টায় অনলাইনে যুক্ত হয়ে বাংলাদেশ শিশু একাডেমি মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগদান করেন। অনুষ্ঠানে জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ ৫ জন জয়িতাকে সম্মাননা প্রদান করা হয়। তারা বাংলাদেশ শিশু একাডেমি মিলনায়তনে উপস্থিত থেকে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে এবং মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর কাছ থেকে সম্মাননা পদক গ্রহণ করেন। প্রত্যেক জয়িতাকে ১ লাখ টাকার চেক, ক্রেষ্ট ও সনদ প্রদান করা হয়।

এদিকে, আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে ‘মুক্তিযুদ্ধে নারী’ শীর্ষক এক সেমিনারের আয়োজন করেছে জাতীয় প্রেসক্লাবে। প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন হলে আগুনের পরশমনি গানটির সাথে প্রদীপ প্রজ্বলন ও শপথ গ্রহণের মধ্য দিয়ে দিবসটি উদযাপন করা হয়। পরে প্রেসক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিনের সভাপতিত্বে এবং ক্লাবের ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য আইয়ুব ভূইয়ার সঞ্চালনায় এক সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে মাসব্যাপী আয়োজনের অংশ হিসেবে আন্তর্জাতিক নারী দিবসের তিন দিনব্যাপী কর্মসূচি শুরু হয়েছে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিঅঅরইউ)।

প্রথম দিনে আজ সকালে বর্ণাঢ্য র‌্যাালি বের হয়। ডিআরইউ সভাপতি মুরসালিন নোমানী ও সাধারণ সম্পাদক মসিউর রহমান খানের নেতৃত্বে র‌্যালিটি ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি চত্বর থেকে বের হয়ে মৎস্য ভবন পর্যন্ত প্রদক্ষিণ করে ডিআরইউ কার্যালয়ে এসে শেষ হয়। পরে নারী দিবসের কেক কাটা হয়। এই সময়ে বক্তারা বৈষম্যহীন সমতার সমাজ গড়তে নারী-পুরুষ নির্বিশেষে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান ।

আন্তর্জাতিক নারী দিবসের প্রথম প্রহরে ৮ মার্চ, রাত ১২টা এক মিনিটে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সম্মিলিতভাবে মোমবাতি প্রজ্জ্বলনের মাধ্যমে শপথ বাক্য পাঠ করে করোনার সময়ে স্বল্প পরিসরে আমরাই পারি জোট মোমবাতি জ্বালিয়ে আঁধার ভাঙ্গার শপথ নিয়েছে।

আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালনের মধ্যে দিয়ে আমরাই পারি জোটের “আঁধার ভাঙার শপথ” কর্মসূচিটি ১২ বছর অতিক্রম করল। এই কর্মসুচির যুগপূর্তিতে শহীদ মিনারে অবস্থানের পাশাপাশি অনলাইন কর্মসুচিতে অতিথি হিসেবে যুক্ত ছিলেন জোটের চেয়ারপারসন সুলতানা কামাল, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রানালয়ের সভাপ্রধান সংসদ সদস্য মেহের আফরোজ চুমকি, জাতীয় কমিটির সদস্য ফওজিয়া খন্দকার ইভা, শিপা হাফিজা, এমবি আখতার, বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংগঠনের প্রতিনিধি এবং আমরাই পারি ৪৮টি জেলার জেলা জোটের আহ্বায়কবৃন্দ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেছেন আমরাই পারি জোটের নির্বাহী সমন্বয়কারী জিনাত আরা হক।

দিবসটি উপলক্ষে আজ জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ কিষানী সভা, রেডিমেড গার্মেন্টস ওয়াকার্স ফেডারেশন, বাংলাদেশ ভাসমান নারী শ্রমিক ইউনিয়ন, বাংলাদেশ কৃষক ফেডারেশন, বাংলাদেশ ভূমিহীন সমিতি, বাংলাদেশ শ্রমিক ফেডারেশন, বাংলাদেশ বিল্ডিং এন্ড উড ওয়াকার্স ফেডারেশন, গণতান্ত্রিক গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশন, অভিবাসী নারী শ্রমিক ফোরাম, ইমারত নির্মাণ শ্রমিক ইউনিয়নÑবাংলাদেশ, বাংলাদেশ জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন ও বাংলাদেশ আদিবাসী সমিতির যৌথ উদ্যোগে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন করে। এসব সংগঠন দিবসটির মূল শ্লোগান সহকারে মানববন্ধন করে। পরে একটি শোভাযাত্রায় নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে ক্যান্সার বিরোধী, স্বেচ্ছাসেবী ও নারী সংগঠন মোর্চা বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করেছে। এ উপলক্ষে কমিউনিটি অনকোলজি সেন্টার ট্রাস্টের নেতৃত্বে ১৩ টি স্বেচ্ছাসেবী ও নারী সংগঠন সকাল ১১ টায় রাজধানীর লালমাটিয়া আড়ংয়ের সামনে থেকে জননীর জন্য পদযাত্রা(প্রতিকী) করেন। পরে বেলা সাড়ে ১১ টায় ডা. মো. হাবিবুল্লাহ তালুকদার রাসকিনের সঞ্চালনায় প্রজনন স্বাস্থ্য ও ক্যান্সার : নারী কতটা সচেতন ’শীর্ষক এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। পরে কমিউনিটি অনকোলজি সেন্টার ট্রাস্ট এর সম্পাদক ও প্রধান নির্বাহী মোসাররত জাহান সৌরভ এর তত্তাবধানে ফ্রি স্তন ক্যান্সার স্ক্রিনিং (ক্লিনিক্যাল ব্রেষ্ট এক্সামিনেশন) ও নারীদের যে কোন ক্যান্সার সর্ম্পকিত বিশেষজ্ঞ পরামর্শ দেয়া হয়।

প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরেও মোমবাতি প্রজ্জ্বলন এবং শপথ বাক্য পাঠের মধ্য দিয়ে নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধ ও নারীর জন্য প্রতিটি স্থান ও মূহুর্তকে নিরাপদ করার আন্দোলনককে বেগবান করার প্রত্যাশা জ্ঞাপন করা হয়েছে।

এছাড়াও বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠন বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে নারী দিবসটি পালন করেছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত