ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর

নাঈমের শতক ও সাব্বিরের অর্ধশতকে সমতায় বাংলাদেশ ‘এ’

প্রকাশ : ১৯ আগস্ট ২০২২, ১৮:১৫

সাহস ডেস্ক

শূন্য থেকে শতক!

এই প্রাপ্তির আনন্দে নিজেকে ধরে রাখতে পারেননি মোহাম্মদ নাঈম। শতক তুলে নেয়ার আনন্দে দেখালেন হেলিকপ্টার নাচ। আনন্দে ভাসারই কথা। অনেক দিন থেকেই রানের দেখা পাচ্ছিলেন না তিনি। নিজেকে হারিয়ে যেন খুঁজছিলেন। বাদ পড়েছেন জাতীয় দল থেকেও। অবশেষে ফিরলেন চেনা ছন্দে। করলেন অসাধারণ সেঞ্চুরি। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে বাংলাদেশ ‘এ’ দলের হয়ে প্রথম ম্যাচে ০ রানে আউট হওয়ার পর দ্বিতীয় ম্যাচে শতক তুলে নিলেন মোহাম্মদ নাঈম। রান পেয়েছেন সাব্বির রহমানও, তুলে নিলেন অর্ধশতক।

বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) সেইন্ট লুসিয়ার ড্যারেন সামি ন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচের আনঅফিশিয়াল ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে ৪৪ রানে জিতেছে বাংলাদেশ ‘এ’ দল। এতে ১-১ সমতায় ফিরেছে টাইগাররা। প্রথম ম্যাচে মাত্র ৮০ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল তারা। শনিবার (২০ আগস্ট) সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচ।

সিরিজের প্রথম ম্যাচে চরম ব্যাটিং ব্যর্থতায় ৮০ রানে অলআউট হয়েছিল বাংলাদেশ ‘এ’ দল। সেখান থেকে ভালোভাবেই ঘুরে দাঁড়ায় দ্বিতীয় ম্যাচে। নাঈমের শতকের সঙ্গে সাব্বির রহমানের অর্ধশতকের কথাও বলতে হয়। টি-টোয়েন্টি সংস্করণে এশিয়া কাপের দলে ডাক পেয়ে প্রায় তিন বছর পর জাতীয় দলে ফিরলেন সাব্বির। স্বাভাবিকভাবেই ওয়েস্ট ইন্ডিজে ওয়ানডে তার ওপর চোখ রাখা হয়েছিল।

এদিন টস হেরে আগে ব্যাটিং পায় বাংলাদেশ ‘এ’ দল। নাঈমের শতক ও সাব্বির রহমানের অর্ধশতকে ৬ উইকেট হারিয়ে ২৭৭ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ। তাড়া করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৩৩ রান তুলতে সক্ষম হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ ‘এ’ দল। ফলে ৪৪ রানে হেরে যায় স্বাগতিকরা। দলের হয়ে ৩৮ রানে করেন ত্যাগনারায়ন চন্দরপল। ৬৮ রান করেন ওপেনার জশুয়া দা সিলভা। রেজাউর, মুকিদুল ও সৌম্যরা নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে আটকে রাখেন ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যানদের। ৩২ রানে ৩ উইকেট নেন পেসার মুকিদুল ইসলাম। ৪৪ রানে ২ উইকেট নেন আরেক পেসার রেজাউর রহমান।

প্রথম ম্যাচে পাঁচ বল খেললেও শূন্য রানে ফিরেছিলেন নাঈম। এদিন জাস্টিন গ্রিভসের হাতে ক্যাচ দেয়ার আগে তুলে নেন অনবদ্য শতক। ১১৭ বলে ১৪টি চার ও ১টি ছক্কায় ১০৩ রান করে নিজের ইনিংস সাজান এ ওপেনার। এদিকে সাব্বির রহমান প্রথম ম্যাচে ৬ বলে ৩ রান করে হতাশ করলেও দ্বিতীয় ম্যাচে ঠিকই তুলে নিয়েছে অর্ধশতক। ৫৮ বলে ৬ চার ১ ছক্কায় ৬২ রান করে সাব্বির বুঝিয়ে দিয়েছেন, হারিয়ে যাননি তিনি। এরপর ১২ বলে ১৮ রান করা অপরাজিত জাকের আলীরও প্রশংসা করতে হয়। তবে ‘এ’ দলের ইনিংসে অন্তত ২০ রান পেরোনো ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সাব্বিরের স্ট্রাইকরেটই সবচেয়ে বেশি (১০৬.৮৯)।

এদিকে প্রথম ম্যাচের মতো দ্বিতীয় ম্যাচেও ব্যর্থ সৌম্য সরকার। বাজে শট খেলে ৬ রানে বোল্ড হন। লুইস শেরমনের করা বলটি ছিল অফস্টাম্পের বেশ বাইরে। জায়গায় দাঁড়িয়ে খেলতে গিয়ে ব্যাটের ভেতরের দিকে লেগে আঘাত হানে স্টাম্পে। দ্বিতীয় উইকেটে সাইফ হাসানের সঙ্গে ৫৭ রানের জুটি গড়েন নাঈম। ২৩ বলে ১৯ রানে আউট হন সাইফ। অধিনায়ক মোহাম্মদ মিঠুন এসে একটু মন্থর ব্যাটিং করেন। ৪৮ বলে ২৮ রানের ইনিংস খেলার পথে নাঈমের সঙ্গে তৃতীয় উইকেটে ৯৩ রান যোগ করেন মিঠুন। শাহাদত হোসেন ও সাব্বির ৬৯ রানের জুটি গড়েন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
আপনি কী মনে করেন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের পদক্ষেপ সন্তোষজনক?