রিয়ালকে হারিয়ে ৯ বছর পর ফাইনালে চেলসি

প্রকাশ : ০৬ মে ২০২১, ১৪:১৯

ক্রীড়া ডেস্ক

টমাস টুখেলের কৌশলের কাছে হেরে গেলেন জিনেদিন জিদান। ইউরোপার সেরা লিগে ফাইনালের দাঁড় প্রান্তে এসেও বিদায় নিতে হয়েছে জিদানের দলকে। নিজেদের মাঠে চেলসির বিপক্ষে প্রথম লেগে ড্র করার পর দ্বিতীয় লেগে হেরেছে জিদানের দল। এই হারে ইউরোপার সেরা লিগের শিরোপার স্বপ্নভঙ্গ হল রিয়াল মাদ্রিদের।

বুধবার (৫ মে) দিবাগত রাতে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের দ্বিতীয় লেগে চেলসির মাঠ স্টামফোর্ড ব্রিজে টমাস টুখেলের শিষ্যদের কাছে ২-০ গোলে হেরে বিদায় জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা। এর আগে ২৮ এপ্রিল নিজেদের মাঠে চেলসির বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করেছিল স্প্যানিশ ক্লাবটি। দুই লেগ মিলিয়ে ৩-১ গোলের জয় নিয়ে দীর্ঘ ৯ বছর পর ইউরোপার বড় আসরের ফাইনালে পৌঁছে গেল ইংলিশ ক্লাব চেলসি। আর এতে ইস্তাম্বুলে অল ‘ইংলিশ ফাইনাল’-ই হচ্ছে।

এদিন ৪-৩-৩ ফর্মেটে দল সাজিয়ে ছিলেন জিদান। এদিকে ৩-৪-৩ ফর্মেটে দল সাজিয়েন টমাস টুখেল। তবে টুখেলের এই ফর্মেটে যে কৌশল ছিল সেটা আর জিদানের শিষ্যরা আটকাতে পারেনি। পুরো ম্যাচের সুর বাঁধা ছিল প্রথম কুড়ি মিনিটেই। প্রথম কয়েক মিনিটে ধারাল ফুটবল খেলেছে রিয়াল। করিম বেনজেমা, এডেন হ্যাজার্ডরা চেলসির বক্সে বল নিয়ে ঢোকার চেষ্টা করেছেন। চেলসি রক্ষণের কাজটা সেরে মাঝমাঠে খেলাটা গুছিয়ে গোল আদায় করে নেওয়ার মতো আক্রমণ করেছে। রিয়ালের ডান প্রান্ত দিয়ে ম্যাসন মাউন্ট, কাইল হার্ভার্টজরা কাঁপুনি দিয়েছেন রিয়ালের রক্ষণে।

ম্যাচের ২৮ মিনিটে ফল পেয়ে যায় চেলসি। রিয়াল বক্সের সামনে ভেরনারের সঙ্গে বল আদান-প্রদান করে হাভার্টজকে পাস দেন এনগোলো কান্তে। চেলসির জার্মান মিডফিল্ডারের চিপ ক্রস বারে লেগে নামার সময় শুধু মাথা ঠুকে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন টিমো ভেরনার। এতে ১-০ গোলে এগিয়ে যায় চেলসি। দুই লেগ মিলিয়ে ২-১ গোলে এগিয়ে থাকে তারা।

তবে ম্যাচের ১৮ মিনিটেই গোলের খাতায় নাম লেখাতে পারতেন জার্মান ফরোয়ার্ড। এসময় তিনি গোল করলে তা অফসাইডের কারণে বাতিল করা হয়।

প্রথমার্ধে ৭২ শতাংশ সময় বল দখলে রেখে বলার মতো দুটি আক্রমণ করতে পেরেছিল রিয়াল। সেটিও বেনজেমার একক প্রচেষ্টায়। দুটি চেষ্টাই দারুণ দক্ষতায় রুখে দেন চেলসি গোলরক্ষক এদুয়ার্দ মেন্দি। পরে প্রথমার্ধে আর কোনো গোল না হলে এই ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় চেলসি।

বিরতি থেকে ফিরে এসে স্রেফ দাপট দেখিয়েছে চেলসি। দ্বিতীয়ার্ধে ফিরেই কোর্তোয়ার কারণে গোল হজম করেনি রিয়াল। কান্তে ও হার্ভার্টজকে হতাশ করেন বেলজিয়ান গোলরক্ষক। ম্যাসন মাউন্টের শট পোস্টের ওপর দিয়ে যায়। প্রথমার্ধে ম্যাড়ম্যাড়ে খেলার পর রিয়াল কোচ জিনেদিন জিদান একাদশে কোনো পরিবর্তন আনেননি।

সেই ম্যাসন মাউন্টই নির্ধারিত সময়ের ৫ মিনিট আগে গোল করে চেলসির ফাইনালে যাওয়া নিশ্চিত করে দেন। ম্যাচের ৮৫ মিনিটে গোটা ম্যাচে দাপিয়ে খেলা কান্তের পাস থেকে পুলিসিচ ক্রস বাড়ান মাউন্টকে। সেখান থেকে গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করে দেন এই ইংলিশ অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার। এতে ২-০ গোলে এগিয়ে যায় চেলসি।

চোট কাটিয়ে রিয়ালের অধিনায়ক সের্হিও রামোস দলে ফিরলেও বিরতির পর ভুগেছে রিয়ালের রক্ষণভাগ। নাচো ও এদের মিলিতাও মাউন্ট-কান্তেদের গতি ও কুশলী পাসের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে রক্ষণ সামলাতে পারেননি। অবশেষে দ্বিতীয় লেগে ২-০ গোলে হেরেছে। দুই লেগ মিলিয়ে ৩-১ গোলে হেরে এবারের চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে বিদায় নিয়েছে স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ।

এদিকে রিয়ালের বিপক্ষে দুই লেগ মিলিয়ে ৩-১ গোলের জয় পেয়েছে চেলসি। এই জয়ে দীর্ঘ ৯ বছর পর ইউরোপের সেরা লিগের ফাইনালে উঠেছে জর্মান কোচ টমাস টুখেলের দল চেলসি। 

আগামী ২৯ মে (শনিবার) ইস্তাম্বুলে শিরোপার লড়াইয়ে আরেক ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটির মুখোমুখি হবে টমাস টুখেলের দল চেলসি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
আপনি কী মনে করেন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের পদক্ষেপ সন্তোষজনক?