কোহলিকে হটিয়ে শীর্ষে বাবর আজম

প্রকাশ : ১৪ এপ্রিল ২০২১, ২০:৩২

ক্রীড়া ডেস্ক
বাবর আজম
টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়ের পর এবার ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষস্থানটা ছুঁয়ে ফেললেন পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান বাবর আজম। টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়ে অনেকদিন যাবৎ শীর্ষস্থানে ছিলেন বাবর। ভারতীয় ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলিকে হটিয়ে আজ প্রথমবারের মতো ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষস্থান দখল করলেন পাকিস্তানি এই অধিনায়ক।
 
বুধবার (১৪ এপ্রিল) আইসিসির প্রকাশিত সর্বশেষ ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ে ৮৬৫ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে ১ নম্বর ব্যাটসম্যান হয়েছেন বাবর আজম। এদিকে ৮৫৭ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে র‌্যাংকিংয়ের দ্বিতীয়তে নেমে গেছেন ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। 
 
নিজের ৮৩৭ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজ খেলতে নেমেছিলেন বাবর। তখন কোহলির থেকে ২০ পয়েন্ট পিছিয়ে থেকে র‌্যাংকিংয়ে দুইয়ে ছিলেন তিনি। ৮৫৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে ছিলেন কোহলি। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তিন ম্যাচে ১০৩, ৩১ ও ৯৪ রান করেন বাবর। সেঞ্চুরিয়নে শেষ ম্যাচে বাবরের ৮২ বলের ইনিংসে ভর করেই ৩২০ রান করে পাকিস্তান। ম্যাচটি ২৮ রানে জিতে তিন ম্যাচের সিরিজটা ২-১ ব্যবধানে জিতে নেয় পাকিস্তান।
 
সিরিজ জয়ের পর বাবরের টেবিলে ২৮ পয়েন্ট যোগ হয়। এতে কোহলিকে ছাড়িয়ে আরো ৮ পয়েন্ট এগিয়ে ৮৬৫ র‌্যাটিং পয়েন্ট নিয়ে র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষে উঠে আসেন পাকিস্তানি অধিনায়ক। বিরাট কোহলি ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষে ছিলেন ২০১৭ সালের অক্টোবর থেকে। দক্ষিণ আফ্রিকার এবি ডি ভিলিয়ার্সকে পেছনে ফেলে শীর্ষে উঠেছিলেন ভারতের অধিনায়ক।
বিরাট কোহলি
পাকিস্তানের চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে উঠলেন বাবর। তার আগে পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে শীর্ষে ছিলেন জহির আব্বাস (১৯৮৩-৮৪), জাভেদ মিয়াঁদাদ (১৯৮৮-৮৯) ও মোহাম্মদ ইউসুফ (২০০৩)।
 
ওয়ানডের মতো টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়েও একই কাজ করেছিলেন বাবর। টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়েও শীর্ষে থাকা বিরাট কোহলিকে হটিয়ে শীর্ষস্থান দখল করেছিলেন পাকিস্তানি এই ব্যাটসম্যান। বেশ কিছুদিন ধরে রেখেছিলেন শীর্ষস্থানটা। আজ হালনাগাদ হয়েছে টি-টোয়েন্টি র‌্যাঙ্কিংয়েও, যেখানে তিন বিভাগের শীর্ষ দশে কোনো পরিবর্তন নেই। এখন তৃতীয় স্থানে নেমে গেছেন বাবর। তাকে হটিয়ে ৮৯২ র‌্যাটিং পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে উঠে এসেছেন ইংলিশ ব্যাটসম্যাস ডেভিড মালান। ৮৩০ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয়তে উঠে এসেছে অষ্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান অ্যারোন ফিন্স। তৃতীয়তে থাকা বাবরের পয়েন্ট ৭৭৯। সেরা বোলিংয়ে শীর্ষে আছেন দক্ষিণ আফ্রিকার তাব্রেইজ শামসি ও অলরাউন্ডার বিভাগে আফগানিস্তানের মোহাম্মদ নবী ধরে রেখেছেন শীর্ষস্থান।
 
ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষে ওঠার পর ইএসপিএনক্রিকইনফোকে বাবর বলেছেন, ‘জহির আব্বাস, জাভেদ মিয়াঁদাদ ও মোহাম্মদ ইউসুফের মতো পাকিস্তানি ক্রিকেটে জ্বলজ্বলে তারকার পাশে বসতে পেরে নিজেকে খুব ভাগ্যবান ও সম্মানিত মনে হচ্ছে।’
 
তিনি বলেন, ‘ক্যারিয়ারে আরেকটি মাইলফলক যোগ হলো। লম্বা সময়ের জন্য র‌্যাঙ্কিংটা ধরে রাখতে আমাকে এখন আরও বেশি পরিশ্রম করতে হবে, ব্যাট হাতে চূড়ান্ত রকম ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে হবে।’
 
টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষেও নাকি উঠতে হবে বাবরকে, ‘আমি এর আগে টি-টোয়েন্টি র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে ছিলাম। তবে আমার চূড়ান্ত লক্ষ্য হলো টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ে সবার ওপরে ওঠা। ব্যাটসম্যানদের সামর্থ্য ও দক্ষতার আসল পুরস্কার হলো সেটি।’
 
আইসিসি র‌্যাংকিং
ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষ পাঁচ ব্যাটসম্যান
ক্রম      নাম                 দল             পয়েন্ট
১         বাবর আজম      পাকিস্তান      ৮৬৫
২         বিরাট কোহলি    ভারত          ৮৫৭
৩         রোহিত শর্মা       ভারত          ৮২৫
৪         রস টেলর          নিউজিল্যান্ড  ৮০১
৫         অ্যারন ফিঞ্চ       অস্ট্রেলিয়া    ৭৯১
 
ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষ পাঁচ বোলার
ক্রম      নাম                         দল                   পয়েন্ট
১         ট্রেন্ট বোল্ট                নিউজিল্যান্ড        ৭৩৭
২         মুজিব উর রেহমান      আফগানিস্তান        ৭০৮
৩         ম্যাট হেনরি                নিউজিল্যান্ড        ৬৯১
৪         যশপ্রীত বুমরা             ভারত                ৬৯০
৫         মেহেদী হাসান মিরাজ    বাংলাদেশ          ৬৬৮
 
ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষ পাঁচ অলরাউন্ডার
ক্রম     নাম                            দল                  পয়েন্ট
১        সাকিব আল হাসান          বাংলাদেশ          ৪০৮
২        বেন স্টোকস                  ইংল্যান্ড            ২৯৫
৩       মোহাম্মদ নবি                 আফগানিস্তান       ২৯৪
৪        ক্রিস ওকস                    ইংল্যান্ড            ২৭৩
৫        রশিদ খান                     আফগানিস্তান      ২৭০
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
আপনি কী মনে করেন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের পদক্ষেপ সন্তোষজনক?