মামলা প্রতিক্রিয়ায় নাসির-তামিমা দম্পত্তির সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৯:৪৫

ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও তার স্ত্রী তামিমা সুলতানা তাম্মির নামে আদালতে মামলা হয়েছে। বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জসিম জসিম এর আদালতে তাম্মির পূর্বের স্বামী রাকিব হাসান বাদী হয়ে এই মামলা করেন। তারই প্রতিক্রিয়ায় বিকেলেই এক সংবাদ সম্মেলন করেন নাসির তামিমা।

সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন নাসির-তামিমা ছাড়াও তাদের একজন আইনজীবী।

নাসির বলেন, ‘সংবাদ মাধ্যমে যেসব তথ্য আসছে তা সত্যি নয়। আর যারা মিথ্যে প্রচার করছে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মামলাটির বিষয়ে জানতে চাইলে নাসিরের আইনজীবী বলেন, ‘এই সংবাদ সম্মেলনের আগে আমরা গণমাধ্যমের মাধ্যমে জানতে পেরেছি একটি মামলা হয়েছে। তবে মামলাটি কি বিষয়ে হয়েছে তার কোনো কাগজপত্র আমাদের কাছে এসে পৌঁছায়নি। কাজেই এ ব্যাপারে মন্তব্য করাটা দুরূহ। যদি কোনো মামলা হয়ে থাকে এবং নাসির হোসেন ও তার স্ত্রীকে বিবাদী করা হয়ে থাকে, তবে সে ব্যাপারে আদালতে যথাযথ বক্তব্য পেশ করবো।’

তামিমা বলেন, ‘আমি তালাকের জন্য আবেদন করি ২০১৬ সালে। তা অনুমোদন হয় ২০১৭-তে। সম্পূর্ণ আইনিভাবে সবকিছু মেনে ডিভোর্সটা হয়। উনার (রাকিব) পরিবার এবং তিনি এই সম্পর্কে জানতেন। উনি এখন যা করছেন তা কেন করছেন এটা হয়তো আপনাদের সবারই বুঝা হয়ে গেছে।’

তিনি বলেন, ‘আমি বলবো, শুধু দুইটা জিনিস (আমাদের বিয়ে হয়েছিল এবং আমাদের একটা বাচ্চা আছে) ছাড়া উনি যত কথা বলেছেন, অন্য সব কথায় মিথ্যে। উনি যা যা বলেছেন সেসব কথার প্রত্যেকটি প্রমাণ আমাদের আছে।’

তামিরা আরো বলেন, ‘আরেকটা কথা আমি বিশেষভাবে উল্লেখ করতে চাই, ফেসবুকে ফেইক আইডি বানিয়ে মিথ্যা সংবাদ দেওয়া হচ্ছে আমাদের বিষয়ে। আসলে আমাদের কোনো ফেসবুক আইডি এখন অ্যাক্টিভ নেই। নাসিরেরও নেই। ওর একটা ফেসবুক পেজ আছে। কোনোকিছু যদি জনগণকে জানাতে হয়, তাহলে আমরা ওর ফেসবুক পেজে এসে জানাবো। দয়া করে, অন্যের কথা শুনে বিষয়গুলো ছড়নো থেকে বিরত থাকুন।’

সংবাদ সম্মেলন শেষে তামিমার ডিভোর্স সার্টিফিকেটের কপি সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরেন নাসিরের আইনজীবি।

নিকাহনামা অনুযায়ী ২০১১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি ৩ লাখ টাকা দেন মোহরে বিয়ে হয় তাদের।

উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি জিডি করেন রাকিব। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আক্তারুজ্জামান ইলিয়াস। জিডির নম্বর ১৩/২৬। সেখান থেকে জানা যায় রাকিব-নাসির ছাড়াও অন্য একজনের সঙ্গে ছয় মাস সংসার করছেন তমিমা।

জিডি করার কারণ উল্লেখ করে রাকিব বলেন, ‘সংসারজীবনে বিবাদীর কাছে অনেক টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার রাখা আছে। এমনকি আমাকে তালাকও দেননি। টাকা ও অলঙ্কার চাইলে বিবাদী আমাকে ক্ষতি করবে বলে হুমকি দিয়েছেন।’

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
আপনি কী মনে করেন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের পদক্ষেপ সন্তোষজনক?