নেইমারের হ্যাটট্রিকের রাতে এমাবাপ্পের রেকর্ড জোড়া গোল

প্রকাশ : ১০ ডিসেম্বর ২০২০, ১৪:২৮

সাহস ডেস্ক

ম্যাচটি গড়িয়ে ছিল মঙ্গলবার রাতে। ১৪ মিনিট খেলা হয়েছিল। কিন্তু ইস্তাম্বুল বাশাকশেহিরের সহকারী কোচের প্রতি রেফারির বর্ণবাদ অভিযোগ আনায় মাঠ ছেড়ে আসে ইস্তাম্বুল বাশাকশেহিরসহ পিএসজির খেলোয়াড়রা। তখন ম্যাচটা গোলশূন্য ছিল। স্থগিত হওয়া ম্যাচটি গড়িয়েছে বুধবার রাতে। আর সেখানে নেইমারের হ্যাটট্রিক ও এমবাপ্পের জোড়া গোলে বাশাকশেহির বিপক্ষে বড় জয় নিয়ে গ্রুপ সেরা হয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোতে পা রেখেছে প্যারিস সেন্ট জার্মেই (পিএসজি)।

বুধবার (৯ ডিসেম্বর) রাতে পার্ক দেস প্রিন্সেস স্টেডিয়ামে বাশাকশেহিরকে ৫-১ গোলে হারিয়েছে টমাস টুখেলে শিষ্যরা।

মঙ্গলবার ১৪ মিনিট খেলা হওয়ার পর ম্যাচ স্থগিত হয়েছিল, সেখান থেকেই খেলা শুরু হয়। অবশ্য মঙ্গলবারই লাইপজিগের বিপক্ষে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হারে পিএসজির পরের রাউন্ডে যাওয়া নিশ্চিত হয়ে যায়। আর এবার বড় এই জয় গ্রুপ সেরা হয়েই পরের পর্বে গেল।

খেলা শুরুর আগে গা গরমের সময় বর্ণবাদবিরোধী জার্সিও পরেছে দুই দল। পরে এমবাপ্পে বলেছেন, ‘আমরা ক্লান্ত। এর মধ্য দিয়ে আর যেতে চাই না। (মঙ্গলবার রাতে) যেটা ঘটেছে তা নিয়ে অবশ্যই আমরা গর্বিত। না খেলে মোটেও হতাশ নই। অনেক কিছুই তো বলা হয় কিন্তু তা কাজে ফলানোর চেয়ে ভালো আর কিছুই হতে পারে না।’

কাল রাতে ১৪ মিনিট থেকে খেলা শুরুর পর রীতিমতো গোলউৎসব করেছে পিএসজি। হ্যাটট্রিক করেন নেইমার। জোড়া গোল তুলে নেন এমবাপ্পে।

এদিন ম্যাচের ২১ মিনিটে নেইমারের গোলে এগিয়ে যায় পিএসজি। মার্কো ভেরাত্তির কাছ থেকে বল পেয়ে প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড়ের দুই পায়ের ফাঁক দিয়ে বল বের করে নেন নেইমার। কিছুটা এগিয়ে ডান পায়ের কোনাকুনি শটে দূরের পোস্ট দিয়ে চমৎকার ফিনিশিং করেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড।

ম্যাচের ৩৮ মিনিটে গোলরক্ষকের ব্যর্থতার সুযোগে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন নেইমার। প্রতি-আক্রমণ থেকে বল পেয়ে রাফিনিয়া বল বাড়ান এমবাপেকে। তিনি খুঁজে নেন অরক্ষিত নেইমারকে। সামনে ছিলেন কেবল গোলরক্ষক, প্রায় তার গা ঘেঁষেই শট নিয়ে বসেন ব্রাজিলিয়ান তারকা। গোলরক্ষকের পায়ে লেগে গতি কিছুটা কমে বল জড়ায় জালে।

ম্যাচের ৪২ মিনিটে সফল স্পটকিকে ব্যবধান ৩-০ করেন এমবাপ্পে। চলতি বছর এবং চলতি আসরে ইউরোপ সেরার মঞ্চে এটাই তার প্রথম গোল।

এমবাপ্পেকে স্পটকিক নিতে দেওয়ায় পরে নেইমারের প্রশংসা করে পিএসজি কোচ টমাস টুখেল বলেছেন, ‘নেইমারের হৃদয় অনেক বড়। সে সব সময় সতীর্থদের কথা ভাবে।’

এরপরে এই ৩-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় পিএসজি।

বিরতি থেকে ফিরে এসে ম্যাচের ৫০ মিনিটে হ্যাটট্রিক পূরণ করে নেইমার। দ্বিতীয়ার্ধে বদলি নামা ডি মারিয়ার সঙ্গে ‘ওয়ান-টু-ওয়ান’ খেলে ডি বক্সের বাইরে থেকে ডান পায়ের শটে জাল খুঁজে নেন নেইমার। চ্যাম্পিয়নস লিগে এটি তার তৃতীয় হ্যাটট্রিক। এই টুর্নামেন্টে নেইমারের চেয়ে বেশি হ্যাটট্রিক আছে কেবল লিওনেল মেসি ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর (৮টি করে)। লিগের ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে আলাদা দুটি দলের হয়ে ন্যূনতম ২০টি করে গোল করলেন নেইমার।

ম্যাচের ৫৭ মিনিটে কিছুটা ব্যবধান কমায় বাশাকশেহির। কর্নার থেকে বল পেয়ে বুলেট গতির শট নেন ইরফান হাকভেচি। নাভাসের একটু সামনে দাঁড়িয়ে থাকা মোহামেত টোপালের গায়ে লেগে দিক পাল্টে বল জড়ায় জালে। তবে পাঁচ মিনিট পর ম্যাচের ৬২ মিনিটে এমবাপ্পের গোলে ফের ব্যাবধান বাড়ায় পিএসজি। নেইমারের দারুণ পাস পাওয়া ডি মারিয়া নিজেই গোলের জন্য শট নিতে পারতেন। তা না করে খুঁজে নেন ফাঁকায় থাকা এমবাপ্পেকে। বাকি কাজটা অনায়াসে সারেন এই ফরাসি ফরোয়ার্ড। এতে জোড়া গোল পূর্ণ করেন এমবাপ্পে।

এই জোড়া গোলে রেকর্ডে দেখা পেয়েছেন এমবাপ্পে। চ্যাম্পিয়নস লিগ ইতিহাসে সবচেয়ে কম বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে ২০ গোলের দেখা পেলেন তিনি। ২১ বছর ৩৫৫ দিন বয়সে এ রেকর্ড গড়ার পথে মেসিকে (২২ বছর ২৬৬ দিন) পেছনে ফেললেন এমবাপ্পে।

পরে ম্যাচের বাকি সময় আর কোনো গোল না হলে এই ৫-০ গোলের বিশাল ব্যবধানে জিয়ে মাঠ ছাড়ে টমাস টুখেলের দল। এ জয়ে ‘এইচ’ গ্রুপের শীর্ষ দল হিসেবে শেষ ষোলোয় উঠল পিএসজি।

এই জয়ে ৬ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে থেকে শেষ ষোলো নিশ্চিত করেছে পিএসজি। সমান ম্যাচে সমান পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে পিছি টেবিলের দ্বিতীয়তে থেকে শেষ ষোলো নিশ্চিত করেছে লাইপজিগ।

বাশাকশেহিরের সহকারী কোচ ও সাবেক ক্যামেরুন ফরোয়ার্ড পিয়ের ওয়েবোর প্রতি বর্ণবাদী মন্তব্য করেছেন মঙ্গলবার রাতের ম্যাচের চতুর্থ রেফারি সেবাস্তিয়ান কোলতেসকু।

কাল মাঠের রেফারি ড্যানি ম্যাককেলির নেতৃত্ব অন্য অফিশিয়ালরা খেলা পরিচালনা করেন। ম্যাচের অফিশিয়ালরাও খেলা শুরুর আগে হাঁটু গেড়ে বর্ণবাদবিরোধী প্রতিবাদ জানান।

কোলতেসকু আগের রাতে ওয়েবোকে লাল কার্ড দেখালেও উয়েফা তদন্ত চালানোয় তা কার্যকর হয়নি। বাশাকশেহিরের বেঞ্চে দেখা গেছে ওয়েবোকে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
আপনি কী মনে করেন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের পদক্ষেপ সন্তোষজনক?