মেসি-দেমবেলের গোলে রোনালদোবিহীন জুভেন্টাসকে হারাল বার্সা

প্রকাশ : ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১১:৫৪

সাহস ডেস্ক

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে দেমবেলে ও মেসির গোলে রোনালদোবিহীন জুভেন্টাসকে হারিয়ে দারুন জয় তুলে নিয়েছে কাতালান ক্লাব বার্সেলোনা। যদিও জুভিরা তিনটি গোল করেছিল। কিন্তু তা অফসাইডের কারনে বাতিল হয়ে যায়। প্রথম দুইটা লাইসম্যান নিজেই অফসাইডের পতাকা তোলেন, আর বাকিটা ভিআরের মাধ্যমে বাতিল হয়।

বুধবার (২৮ অক্টোবর) আলিয়াঞ্জ স্টেডিয়ামে আন্দ্রেয়া পিরলোর শিষ্যদের ২-০ গোলে হারিয়েছে রোনাল্ড কোম্যানের শিষ্যরা।

এর আগের দিন মঙ্গলবার পদত্যাগ করেছেন বার্সেলোনা সভাপতি জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউ। লিওনেল মেসিসহ বার্সা ফুটবলারদের অনেকেই সদ্য বিদায়ী সভাপতির কর্মকাণ্ডে বিরক্ত ছিলেন। সে হিসেবে ফুরফুরে মেজাজ নিয়েই চ্যাম্পিয়নস লিগে জুভেন্টাসের বিপক্ষে মাঠে নামার সুযোগ হয়েছিল তাদের। ম্যাচ শেষেও ফুরফুরে তারা।

এই ম্যাচটা দীর্ঘদিন পর মেসি-রোনালদো দ্বৈরথই হওয়ার কথা ছিল। ২০১৮ সালে রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে জুভেন্টাসে চলে যাওয়ার পর যে মাঠে আর তাদের দেখা হয়নি। কিন্তু সে সম্ভাবনা ক্ষীণ হয়ে গিয়েছিল সপ্তাহ দুই-এক আগেই, রোনালদো কোভিড পজিটিভ হওয়ায়। তবে ম্যাচের আগে রোনালদো আবারও কোভিড পজিটিভ হওয়ায় সেই ক্ষীণ সম্ভাবনাটুকুও বিলীন হয়ে যায়। কাল চ্যাম্পিয়নস লিগে মাঠের লড়াইয়ে একটা জিনিস পরিষ্কারভাবেই বোঝা গেছে রোনালদোকে ছাড়া জুভেন্টাস কতটা সাদামাটা। তার উপর ম্যাচের শেষদিকে ১০ জনের দলে পরিণত হয় স্বাগতিকরা।

এদিন খেলার শুরুতেই এগিয়ে যেতে পারতো বার্সা। মিডফিল্ডার মিরালেম পিয়ানিচের শট স্বাগতিক গোলরক্ষক ভয়চেখ স্ট্যাসনি ঝাঁপিয়ে ফেরানোর পর ফাঁকায় বল পেয়ে অঁতোয়ান গ্রিজমান জোরালো শট নিলেও তা পোস্টে বাধা পায়।

তরব ম্যাচের ১৪ মিনিটে এগিয়ে যায় বার্সা। মেসির বাড়ানো বলে দেম্বেলে শট নেন, তবে সেই শট ফেদেরিকো চিয়েসার পায়ে লেগে দিক পাল্টে দূরের পোস্ট দিয়ে জালে জড়ায়। এরপর ২৩ মিনিটে জুভেন্টাসের আলভারো মোরাতা গোল করলেও তা অফসাইডের কারণে বাতিল হয়।

পরে বিরতির আগে মেসি, গ্রিজমান ও দেম্বেলে আরও কয়েকটি চেষ্টায় ব্যর্থ হন। তবে প্রথমার্ধে আর কোন গোল না হলে এই ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় মেসিবাহিনী।

বিরতি থেকে ফিরে এসে শুরুতে ফের মোরাতা হতাশ হন। এবার গোল করলেও রেফারি দীর্ঘক্ষণ ভিএআর দেখে অফসাইডের ঘোষণা দেন। কিন্তু এরচেয়েও বেশি হতাশ হয় বার্সা শিবির। ম্যাচের ৬২ মিনিটে মেসির জোরালো শট পোস্টের একটু বাইরে দিয়ে যায়। ১২ মিনিট পর অধিনায়কের দারুণ পাস ধরে ডি-বক্সে ঢুকে গ্রিজমান লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নিলে হতাশা বাড়ে বার্সেলোনার।

ম্যাচের ৮৫ মিনিটে পিয়ানিচকে অহেতুক ফাউল করে জুভেন্টাসের ডিফেন্ডার দেমিরাল দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখলে ১০ জনের দলে পরিণত হয় আন্দ্রে পিরলোর দল। আর এই ভাঙা দল নিয়ে শেষ দিকে আরও একটি গোল হজম করে জুভেন্টাস। ফেদেরিকো বের্নারদেস্কি ডি-বক্সে আনসু ফাতিকে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় বার্সেলোনা। সেখান থেকে গোল করতে কোনো ভুল করেননি মেসি। সেইসঙ্গে দারুণ জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বার্সা।

এই জয় নিয়ে ২ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে আছে বার্সেলোনা। ১ জয়ে ৩ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয়তে আছে জুভেন্টাস।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
আপনি কী মনে করেন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের পদক্ষেপ সন্তোষজনক?