বার্সাকে হারিয়ে প্রথম এল ক্লাসিকো শুরু করল দাপুটে রিয়াল

প্রকাশ : ২৫ অক্টোবর ২০২০, ১২:১০

সাহস ডেস্ক

মৌসুমের প্রথম এল ক্লাসিকোতে ঘরের মাঠে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে হেরে গেল বার্সেলোনা। এর কদিন আগেই চ্যাম্পিয়নস লিগে ৫-১ গোলের বড় জয় পায় কোম্যানের শিষ্যরা। এদিকে টানা দুই ম্যাচ হারের পর কাতালানদের বিপক্ষে দারুন জয়ের স্বাদ পেল রিয়াল মাদ্রিদ।

শনিবার (২৪ অক্টোবর) ক্যাম্প ন্যুয়ে রোনাল্ড কোম্যানের শিষ্যদের ৩-১ গোলে হারিয়েছে জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা।

এদিন শুরুতে ম্যাচের পঞ্চম মিনিটেই বার্সেলোনাকে চমকে দিয়েছেন রিয়ালের ফেদেরিকো ভালভার্দে। নিজেদের অর্ধ থেকে করিম বেনজেমার দিকে বল বাড়িয়ে দিয়েছিলেন নাচো। সে বল দারুণ নিয়ন্ত্রণে রেখে ড্রিবলিং করে প্রতিপক্ষের রক্ষণের দিকে এগিয়েছেন বেনজেমা। যখন দেখলেন বার্সার দুই রক্ষণ ও বুসকেতস তাকে নিয়েই ব্যস্ত, একদম মেপে বক্সে বল ঠেলে দিয়েছেন ভালভার্দের দিকে। গোলরক্ষককে একা পেয়ে দূরে পোস্টে বল পাঠিয়েছেন এই উরুগুইয়ান।

লিড বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি রিয়াল মাদ্রিদ। ম্যাচের অষ্টম মিনিটেই শোধ দিলেন আনসু ফাতি। প্রায় মাঝমাঠে নেমে দারুণ এক লব করেছিলেন মেসি। রিয়াল রক্ষণ স্তব্ধ হয়ে দেখল কীভাবে তাদের অতিক্রম করে গেলেন মাত্রই চোট কাটিয়ে ফেরা জর্দি আলবা। তার মাপা পাস থেকে অনায়াসে বল জালে পাঠিয়েছেন একুশ শতকে ক্লাসিকোর সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় আনসু ফাতি। পরে ১-১ গোলের সমতা নিয়ে ফের শুরু করে বার্সা-রিয়াল।

জমজমাট এমন ফুটবলেও গোল না বাড়ার দায়টা একটু বয়স্কদের। ফাতি ও ভালভার্দে যেখানে নিজেদের প্রথম সুযোগেই গোল করেছেন, সেখানে দুই তরুণের ঠিক উল্টোটাই করেছেন দুই অভিজ্ঞ। দুই দলেরই মূল গোল ভরসা মেসি ও বেনজেমা গোলের সুবর্ণ সুযোগ নষ্ট করেছেন। ম্যাচের ২২ মিনিটে মেসির শট দারুণভাবে ফিরিয়েছেন থিবো কোর্তোয়া। পরের মিনিটেই প্রতি আক্রমণে ওঠা রিয়াল গোল পেতে পারত যদি না বেনজেমা সহজতম এক সুযোগ হাতছাড়া করছেন।

তবে দ্বিতীয়র্ধে খেলার তীব্রতায় কোনো ছেদ পড়েনি। শুরুটা রিয়াল করলেও ৮ মিনিটের মধ্যেই দুটি গোলের দারুণ সুযোগ পেয়েছিল বার্সেলোনা। ম্যাচের ৫৩ মিনিটে প্রায় ফাঁকায় বল পেয়েও হেডটা লক্ষ্যে রাখতে পারেননি কুতিনিও। দ্বিতীয়ার্ধের ১০ মিনিট পেরোতেই মাঝমাঠে বাড়তি একজন থাকার সুবিধা নিতে শুরু করে বার্সেলোনা।

কিন্তু ৫৯ মিনিটে অনেকটা আচমকা খেলার বিপরীতে পেনাল্টি পেয়ে যায় রিয়াল। ক্রুসের এক ফ্রি কিক থেকে হেড নেওয়ার জন্য লাফ দিয়েছিলেন রামোস। তার জার্সি টেনে ধরেন ক্লেমঁ লংলে। প্রথমে রেফারির চোখ এড়ালেও ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি সেটা পেনাল্টি বলেই রায় দেয়। আর পেনাল্টি থেকে গোল করায় তো ইদানীং বিশ্বের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় বলেই বিবেচিত হন রামোস।

ম্যাচরে ৬৯ মিনিটেই উপহার ফিরিয়ে দেওয়ার উপক্রম হয়েছিল রামোসের। কুতিনিওর জোরালো এক শট দারুণভাবে ফিরিয়ে দিয়েছিলেন কোর্তোয়া। সে বল বক্স থেকে বের করার জন্য মারতে গিয়ে ভারানের গায়ে মেরেছিলেন রামোস। বার্সেলোনা পেনাল্টির দাবি রেফারি মানেননি, ভিএআরও আমলে নেয়নি সে দাবি।

দ্বিতীয় গোলের পরই কিছুটা রক্ষণাত্মক হয়ে পড়ে রিয়াল। ম্যাচের ৮৫ মিনিটে ক্রুসের দুটি শট দারুণভাবে ঠেকিয়েছেন নেতো। পরের মিনিটেই আবারও বার্সেলোনাকে বাঁচিয়েছেন নেতো।

ম্যাচের ৯০ মিনিটে আর নেতোও পারলেন না দলের পতন ঠেকাতে। রদ্রিগোর গোল ঠেকাতে গিয়ে ভুল করে বসেন নেতো। সেখানে বল পেয়ে অনেক সময় নিয়ে তবেই বল জালে পাঠিয়েছেন বদলি নামা লুকা মদরিচ। অবশেষে ৩-১ গোলের জয় নিয়ে নতুন মৌসুমের এল ক্লাসিকো শুরু করল জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা।

এই জয়ে লা লিগায় ৬ ম্যাচে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে উঠে এসেছে রিয়াল মাদ্রিদ। এক ম্যাচ কম খেলে ৭ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের ১২তম স্থানে আছে বার্সেলোনা। সমান ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দ্বিতীয়তে আছে অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ। ৬ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তৃতীয়তে আছে রিয়াল সোসিয়েদাদ এবং চতুর্থস্থানে আছে ভিয়ারিয়াল।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
আপনি কী মনে করেন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের পদক্ষেপ সন্তোষজনক?