x

এইমাত্র

  •  গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় নতুন সংক্রমিত ২৬৫৪ জন, মৃত ৩৩ জন
  •  মহামারি করোনাভাইরাসে বিশ্বব্যাপী মৃত্যু ৭ লাখ ১১ হাজার, আক্রান্ত ১ কোটি ৮৯ লাখেরও বেশি

সাঙ্গাকারাকে ১০ ঘন্টা জিজ্ঞাসাবাদ, বাইরে বিক্ষোভ

প্রকাশ : ০৩ জুলাই ২০২০, ১৬:২২

সাহস ডেস্ক

২০১১ ক্রিকেট বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচটি ভারতের কাছে বিক্রির অভিযোগ ওঠায় তোলপার শুরু হয়েছে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট পাড়ায়। যত ঝড়-ঝাপটা সব সামলাতে হচ্ছে লঙ্কান অধিনায়ক কুমার সাঙ্গাকারাকে। কাল লঙ্কান গোয়েন্দারা সাঙ্গাকারাকে প্রায় ১০ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করেছে বলে জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা এএফপি।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) রাত থেকেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি ছবি ঘুরছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বেরিয়ে আসছেন কুমার সাঙ্গাকারা। দেশটির সংবাদকর্মী রেক্স ক্লেমেন্টাইন তো টুইটে সরকারকে এ জন্য জনসমক্ষে ক্ষমাও চাইতে বলেছেন। বোঝাই যাচ্ছে, ২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনাল ‘বিক্রি’র অভিযোগ ওঠার পর ঝড় বইছে লঙ্কান ক্রিকেটে।

তদন্ত কমিটি প্রায় দশ ঘণ্টা ধরে জেরা করেছে শ্রীলঙ্কার এই সাবেক অধিনায়ককে। সঙ্গকারাকে এই ভাবে জেরা করা নিয়ে আবার বিক্ষোভও হয়েছে কলম্বোয়। সঙ্গকারাকে জেরা করার সময় দেশটির ক্রীড়ামন্ত্রণালয়ের বাইরে বিক্ষোভ দেখা যায়।

জানা গেছে, একটি রাজনৈতিক দলের যুব শাখার তরফে এই বিক্ষোভ প্রদর্শন করা হয়। বিক্ষোভকারীদের তরফে বলা হয়েছে, ‘কোনও প্রমাণ ছাড়াই ম্যাচ পাতানোর অভিযোগ করা হয়েছে। আর সেই অভিযোগের ভিত্তিতে সঙ্গকারা এবং অন্যান্য ক্রিকেটারকে ক্রমাগত ঝামেলায় ফেলা হচ্ছে। যার প্রতিবাদ জানিয়ে এই বিক্ষোভ।’

পুরো ঘটনায় রাজনীতির রংও লেগেছে। ওই রাজনৈতিক দলের প্রধানমন্ত্রীর পদের দাবিদার সাজিত প্রেমদাসা টুইট করেছেন, ‘সঙ্গকারা এবং ২০১১ সালের নায়কদের ক্রমাগত বিব্রত করা হচ্ছে। সরকারের এই কাজ মেনে নেওয়া যায় না। এর বিরুদ্ধে কড়া প্রতিবাদ হওয়া উচিত।’

শুধু সাঙ্গাকারাই নন, ৯ বছর আগের সেই ফাইনালে শ্রীলঙ্কার সহ-অধিনায়ক মাহেলা জয়াবর্ধনেকেও ডেকেছিল ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের বিশেষ তদন্ত বিভাগ। আজ জয়াবর্ধনে সেখানে হাজির হলেও তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়নি। পরে তাঁকে ডাকা হবে বলে জানিয়েছে লঙ্কান সংবাদমাধ্যম। এদিকে জয়াবর্ধনে জানিয়েছেন, তাঁকে আনুষ্ঠানিকভাবে ডাকেনি বিশেষ তদন্ত বিভাগ।

২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারতের কাছে ৬ উইকেটে হেরে স্বপ্ন ভেঙেছিল লঙ্কানদের। পুলিশের বিশেষ তদন্ত বিভাগ সে ম্যাচের নানা বিষয় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে সাঙ্গাকারাকে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সংবাদমাধ্যমকে সাঙ্গাকারা বলেন, ‘এখানে জবানবন্দি দিতে এসেছিলাম। কারণ, খেলাটার প্রতি আমার দায়িত্ববোধ ও সম্মান আছে। (শ্রীলঙ্কার সাবেক ক্রীড়ামন্ত্রী) মহিন্দানন্দ আলুথাগমাগে যে অভিযোগ তুলেছেন, আশা করি, তদন্তে সত্য উদ্‌ঘাটিত হবে।’ কী কী জিজ্ঞাসা করা হয়েছে, এ নিয়ে কিছু বলেননি সাঙ্গাকারা।

শ্রীলঙ্কার সাবেক ওপেনার উপুল থারাঙ্গাকে প্রথমে ডেকেছিল পুলিশের বিশেষ বিভাগ। ফাইনালে তিনি ছিলেন দলের ওপেনার। তখন লঙ্কানদের প্রধান নির্বাচক অরবিন্দ ডি সিলভাকেও প্রায় ছয় ঘন্টা জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ।

২০১১ বিশ্বকাপ চলাকালীন শ্রীলঙ্কার ক্রীড়ামন্ত্রী ছিলেন আলুথাগমাগে। গত মাসে তিনি অভিযোগ তোলেন, ২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনাল ‘বিক্রি’ করেছে শ্রীলঙ্কা দল। সেই ম্যাচের ফল নিয়ে শ্রীলঙ্কার সাবেক অধিনায়ক অর্জুনা রানাতুঙ্গাও এর আগে প্রশ্ন তুলেছেন। বর্তমানে এমসিসি সভাপতি সাঙ্গাকারা জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হওয়ার আগে বলেছিলেন, আলুথাগমাগের অভিযোগ আইসিসিতে তোলা উচিত।

এদিকে সাঙ্গাকারাদের পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন কেউ কেউ। দেশটির ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সামনে চলছে প্রতিবাদ। সাবেক ক্রিকেটারদের হয়রানির বিপক্ষে তাদের এই কর্মূসচি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত