এভারটনকে হারিয়ে লিভারপুল ও কোচের মাইলফলক

প্রকাশ : ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৪:৪৩

সাহস ডেস্ক

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ঘরের মাঠে একই শহরের ক্লাব এভারটনকে বড় ব্যবধানে হারিয়ে লিভারপুলের রেকর্ডের দিনে আরেক রেকর্ডের পাতায় নাম লেখাল কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপ।

বুধবার (৪ ডিসেম্বর) অ্যানফিল্ডে এভারটনকে ৫-২ গোলে হারিয়ে দুর্দান্ত জয় তুলে নিয়েছে ইয়ুর্গেন ক্লপের শিষ্যরা।

আর এই জয়ে প্রিমিয়ার লিগে টানা ৩২ ম্যাচে অপরাজিত থেকে নিজেদের পুরোনো রেকর্ড ভাঙল অল রেডসরা। এর আগে ১৯৮৭ সালের মে থেকে ১৯৮৮ সালের মার্চ পর্যন্ত টানা ৩১ ম্যাচে অপরাজিত ছিল লিভারপুল। ক্লাবের এই রেকর্ডের দিনে শততম জয়ের মাইলফলকেও পৌঁছেছেন লিভারপুল কোচ ইয়র্গেন ক্লপ। এমন মাইলফলকে পৌঁছাতে এই জার্মানের লাগল ১৫৯ ম্যাচ। তবে এই লিগে একমাত্র হোসে মরিনহোই তার থেকে ভালো সাফল্য পেয়েছেন। স্পেশাল ওয়ান খ্যাত এই তারকা ১৪২ ম্যাচে শততম জয় পেয়েছিলেন।

এদিন দলের সেরা তারকা মোহামেদ সালাহ ও রবার্তো ফিরমিনোকে বেঞ্চেই বসিয়েই একাদশ সাজায় লিভারপুল কোচ। তবে তাদের অভাব বুঝতে দেননি ডিভোগ ওরিগি ও সাদিও মানেরা। ম্যাচের ৬ মিনিটের মাথায় গোল করে দলকে লিড এনে দেন ওরিগি। আর ১৭ মিনিটে জাদরান শাকিরি চলমান মৌসুমে নিজের প্রথম গোল করলে ব্যবধান দ্বিগুণ হয় স্বাগতিকদের।

ম্যাচের ২১তম মিনিটে এভারটনের হয়ে গোলে ব্যবধান কমান মাইকেল কিয়েন। ম্যাচের ৩১তম মিনিটে ওরিগি নিজের জোড়া গোল পূর্ণ করলে আরও আরো ব্যবধান বাড়ায় লিভারপুল। সেই সঙ্গে প্রথমার্ধের শেষ মিনিটে অর্থাৎ ৪৫তম মিনিটে মানের গোলে বড় জয়ের সম্ভাবনাই জাগায় লিভারপুল। তবে বিরতিতে যাওয়ার আগে যোগ করা সময়ে ৪৫+৩ মিনিটে এভারটনের রিচার্ডসন গোল করে আবারও ব্যবধান কমিয়ে খেলা জমিয়ে তোলেন। অবশেষে ৪-২ গোলের ব্যবধান নিয়ে বিরতিতে যায় দু’দল।

বিরতি থেকে ফিরে এসে অবশ্য লিভারপুল একচেটিয়া আধিপত্য বিস্তার করে খেলে। যদিও এভারটনের কড়া ডিফেন্স ভাঙতে পারছিল না লিভারপুল। তবে ম্যাচের নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে অর্থাৎ ৯০তম মিনিটে জিওর্জিও ভাইনালডাম গোল করলে লিভারপুল ৫-২ গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে।

এই জয়ে ১৫ ম্যাচে ৪৩ পয়েন্ট নিয়ে লিগে নিজেদের শীর্ষস্থান আরও মজবুত করল লিভারপুল। সমান ম্যাচে ৩৫ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয়তে আছে লেস্টার সিটি। সমান ম্যাচে ৩২ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তৃতীয়তে আছে ম্যানচেস্টার সিটি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
আপনি কী মনে করেন করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সরকারের পদক্ষেপ সন্তোষজনক?