x

এইমাত্র

  •  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্জন হলে জানালার গ্রিলে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় একজনের মৃতদেহ উদ্ধার

ফেসবুকের লাইভস্ট্রিম বন্ধের দাবি

প্রকাশ : ১৮ মার্চ ২০১৯, ১৭:০৪

সাহস ডেস্ক

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে ভয়াবহ হামলা ফেসবুকে সরাসরি সম্প্রচার হওয়ার পর থেকে ফেসবুকের ওপর বৈশ্বিক চাপ বাড়ছে। ফেসবুকের লাইভস্ট্রিম বন্ধ করে দেওয়ার দাবি উঠছে।

ফেসবুকের পাশাপাশি নিউজিল্যান্ডের নৃশংস হত্যাকাণ্ডের ঘটনা গুগলের ইউটিউব, টুইটারেও লাখ লাখ কপি ছড়িয়ে পড়েছে। তবে মসজিদে হামলার ঘটনাটি ফেসবুকে সরাসরি সম্প্রচারের জন্য বেছে নেওয়ায় এ প্ল্যাটফর্ম নিয়ে বেশি আলোচনা হচ্ছে।

অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড ও যুক্তরাজ্য সরকার সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলেকে সন্ত্রাসী কার্যক্রম ছড়ানো রোধে বাড়তি ব্যবস্থা নিতে বলেছে। তারা বিশেষ করে ভিডিও লাইভস্ট্রিমের বিষয়টিতে আপত্তি করছে।

১৭ মার্চ (রবিবার) অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন সোশ্যাল মিডিয়া কোম্পানিগুলোকে তাদের প্ল্যাটফর্মে সন্ত্রাসী ভিডিও ছড়িয়ে পড়া ঠেকানোর আহ্বান জানান। তিনি সতর্ক করে বলেন, একবার এসব মাধ্যমে ভিডিও চলে এলে তা ছড়িয়ে পড়া ঠেকানো কঠিন। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোকে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সহযোগিতা করতে হবে।

বিরোধী নেতা বিল শর্টেন এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, ফেসবুকের লাইভস্ট্রিমিংয়ের মতো বিষয়গুলোয় কোম্পানিগুলোকে উন্নত পর্যবেক্ষণ ব্যবস্থা ও ঘৃণিত বক্তব্য ছড়িয়ে পড়ানো ঠেকানোর ব্যবস্থা বাধ্যতামূলক থাকতে হবে।

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন বলেছেন, ফেসবুকের লাইভস্ট্রিমিং বন্ধ করা যায় কি না, তা নিয়ে তিনি ফেসবুক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করবেন।

নিউজিল্যান্ডের সন্ত্রাসী হামলার ওই ভিডিও পুরোপুরি ফেসবুক থেকে মুছে ফেলা হয়েছে—এমন কথা নিশ্চিত করে বলতে পারেননি ফেসবুকের মুখপাত্র। 

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বলছে, ২৪ ঘণ্টায় ১৫ লাখ ভিডিও সরানো হয়েছে।  কিন্তু তিন লাখ ভিডিও পোস্ট হয়ে গেছে। ওই ভিডিও দেখানোর বেশ কিছু অভিযোগ পাওয়ার পর প্রচলিত টেলিভিশন কোম্পানিগুলোকেও নজরদারির আওতায় এনেছে নিয়ন্ত্রকেরা। 

সাহস২৪.কম/ইতু

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত