x

এইমাত্র

  •  সুস্থ হয়ে কাজে যোগদান করেছেন স্বাস্থ্য মহাপরিচালক
  •  করোনায় সারা বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ৩ লাখ ৭৪ হাজার ৩২৭ জন
  •  করোনায় বিশ্বজুড়ে আক্রান্ত ৬২ লাখের অধিক, সুস্থ হয়েছেন ২৮ লাখেরও বেশী
  •  শক্তি হারাচ্ছে করোনাভাইরাস, দাবি ইতালির চিকিৎসকের
  •  করোনাভাইরাসঃ বাংলাদেশে আরও ২২ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৩৮১

বিদ্যানন্দ, কিশোর কুমার এবং সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর নির্লজ্জ অপপ্রচার

প্রকাশ : ০৫ মে ২০২০, ১৪:২৯

কিশোর কুমার আর বিদ্যানন্দ নিয়ে বিভিন্ন গোষ্ঠীর অপপ্রচার এক দিনে তৈরি হয় নি৷ আজ থেকে তাদের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করছি না কেবল!

বছর কয়েক আগে, যখন স্বেচ্ছাসেবকরা পথশিশুদের খাবার খাওয়ানোর জন্য রাস্তায় নামল, তখন অপপ্রচার চালানো হলো প্রতিষ্ঠানের নামে।

প্রচার করা হলো বাচ্চাদের মরা মাংস খাওয়ানো হয়। লাখ লাখ গরীব বাচ্চাদের ফ্রি ফ্রি এত খাবার নইলে কিভাবে দেয়!

বলা হলো খাবারের সাথে চেতনানাশক মিশিয়ে বাচ্চাদের পাচার করে দেওয়ার ধান্ধা করছে এই প্রতিষ্ঠান।

কোমলমতি শিশুদের মনে ভয় ঢুকিয়ে দেওয়া হলো এই প্রতিষ্ঠানের স্বেচ্ছাসেবকদের ছেলেধরা হিসেবে। প্রথম দিকে ভয়ে ভয়ে শিশুরা খাবার নিতে চাইত না স্বেচ্ছাসেবকদের হাত থেকে। পরবর্তী সময়ে আসল সত্য বুঝতে পেরে বাচ্চাদের ভয় ভাঙল। এখন খাবারের ভ্যান দেখলেই হইচই করে এসে লাইনে দাঁড়িয়ে যায় বাচ্চাগুলো। অপপ্রচারকারীর দল থেমে থাকল না।

গত বছর ইফতার কার্যক্রমকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য তারা ছড়াল ইফতারের ছোলার সাথে গো-চনা মেশানো হয়। কয়দিন আগে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ডাকাতদের আক্রমণের শিকার হলো স্বেচ্ছাসেবকরা।

রাজশাহী শাখার স্বেচ্ছাসেবকরা আক্রান্ত হলো স্থানীয় সন্ত্রাসীদের হাতে। কিন্তু সবচে' শক্ত আঘাত করলো সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী। ২-৩ বছর থেকেই তারা বলছে- বিদ্যানন্দ ইসকনের সাথে সম্পৃক্ত। তার উদ্যোক্তা কিশোর কুমারের ধর্মীয় পরিচয়কে সামনে রেখে অপ-প্রচার করলো বিভিন্ন জামায়াতি সাম্প্রদায়িক পেইজ।

গত কুরবানী ঈদে বিদ্যানন্দ কুরবানীর মাংস সংগ্রহ করে গরীবদের বিতরণ করছিল, তখনও দেখেছি অপপ্রচার হয়েছে।
এবার কিছুদিন আগেই ওরা বড় অংকের ডোনেশন পেয়েছে।

সপ্তাহ খানেক আগে- যাকাত সংগ্রহের জন্য কয়েকজন ইসলামী চিন্তাবিদ ও বিশ্ববিদ্যালয়-মাদ্রাসা শিক্ষকের তালিকা প্রকাশ করেছে- যারা এই যাকাত আদায় কার্যক্রম তদারকি করবেন।

এরপর যে গোষ্ঠী এই যাকাত-ফিতরার টাকা নিয়ে এতদিন চলে আসছে; তারা আর আগের সেই সাম্প্রদায়িক কীটেরা নতুন করে প্রচার করছে- কিশোর কুমার হিন্দুত্ববাদী সংগঠক।
বিদ্যানন্দ গোপনে ইসকনের এফিলিয়েটেড সংস্থা।

এইসব অপপ্রচার আর নিতে না পেরেই; বিদ্যানন্দের প্রতিষ্ঠাতা তার দায়িত্ব থেকে সরে গেল।

আর ক্ল্যারিফিকেশন দিচ্ছে তার ৯০% শতাংশ ভলান্টিয়ার মুসলিম। তাদের নামটি একজন মুসলিম স্বেচ্ছাসেবকের দেয়া!

মানুষ কতটুকু আঘাত পেলে নিজের সন্তানতূল্য প্রতিষ্ঠান নিয়ে বিবৃতি দেয়। দায়িত্ব থেকে সরে যায়! সেটা অনুমান করতে পারি।

কিন্তু জিতলো সেই গোষ্ঠী। যারা বিদ্যানন্দ কেন, বাংলাদেশের নামকেই হিন্দুয়ানী মনে করে!

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

লেখকদের নামঃ