লক্ষ্মীপুরে স্বামী হত্যায় স্ত্রীর ১০ বছর কারাদণ্ড

অপর হত্যা মামলায় পাঁচ আসামি খালাস

প্রকাশ : ১৭ জানুয়ারি ২০২৩, ১২:৩৬

লক্ষ্মীপুরে স্বামীকে শ্বাসরোধে হত্যার দায়ে স্ত্রীকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এ সময় আদালত আসামিকে আরও ১০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন। একই আদালত অপর একটি হত্যা মামলায় যুবককে হত্যার দায় প্রমাণিত না হওয়ায় পাঁচ জনকে (সকল আসামি) খালাস দেন।

সোমবার (১৬ জানুয়ারি) দুপুরে লক্ষ্মীপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. রহিবুল ইসলাম এ দুই মামলার রায় দেন। জেলা জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) অ্যাডভোকেট জসিম উদ্দিন রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আদালত সূত্র জানা যায়, ২০২১ সালের ২২ মার্চ রাতে লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলার বামনী গ্রামে পারিবারিক বিরোধের জের ধরে স্বামী সহিদ হোসেনকে শ্বাসরোধে হত্যা করে স্ত্রী আমেনা বেগম। বিষয়টি গোপন রেখে স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে বলে জানায় আমেনা। পরে দাফনের জন্য গোসল করাতে নিলে গলায় আঁচড়ের দাগ দেখে সন্দেহ হলে পুলিশে খবর দেয় পরিবারের লোকজন। পরে ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে শ্বাসরোধে হত্যার বিষয়টি উঠে আসে।

এ ঘটনায় সহিদের বড় ভাই আব্দুল আলী খোকন বাদী হয়ে আমেনা বেগমকে আসামি করে ২০২২ সালের ২৯ এপ্রিল রায়পুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় একই বছরের ২৩ মে আদালতে তদন্তপত্র দাখিল করে পুলিশ। পুলিশের তদন্ত প্রতিবেদন ও সাক্ষ্যপ্রমাণের ভিত্তিতে আদালতে দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় আমেনা বেগমকে ১০ বছরের কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন।

অন্যদিকে, লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে পরকীয়ার জের ধরে নাসরিন সুলতানা নামে এক নারীকে হত্যা করে রাসেল নামে এক যুবক। ঘটনাটি জানাজানি হলে স্থানীয় লোকজন উত্তেজিত হয়ে রাসেলকে এলোপাথাড়ি মারধর করে। এতে মৃত্যু হয় রাসেলের। এ ঘটনায় ২০২১ সালের ১৮ এপ্রিল অজ্ঞাতনামা ৩০০ জনকে বিবাদী করে রামগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন রাসেলের স্ত্রী রুমা আক্তার। পরে ২০২২ সালের ২৬ জানুয়ারি মানিক মোল্লা, আব্দুল করিম রিপন, বিল্লাল হোসেন, আবুল খায়ের ও মোহাম্মদ হোসেনকে অভিযুক্ত করে আদালতে তদন্তপ্রতিবেদন দাখিল করে পুলিশ। আদালত অভিযোগপত্রটি পর্যালোচনা ও আসামিদের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যপ্রমাণে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় আদালত তাদের বেকসুর খালাস দেন।

সাহস২৪.কম/এএম.

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?