অপপ্রচারে বিভ্রান্ত হবেন না: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশ : ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ১৫:২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, অর্থনীতি নিয়ে অপপ্রচার চলছে, কিছু কথা ব্যাপকভাবে প্রচার হচ্ছে নানাভাবে, এতে বিভ্রান্ত হওয়ার কিছু নেই। দেশের অর্থনীতি এখনো স্থিতিশীল।

সোমবার (৫ ডিসেম্বর) সকালে ঢাকার মিরপুর সেনানিবাসের ডিএসসিএসসি শেখ হাসিনা কমপ্লেক্সে ‘ন্যাশনাল ডিফেন্স কোর্স-২০২২’ ও ‘আর্মড ফোর্সেস ওয়ার কোর্স-২০২২’-এর গ্র্যাজুয়েশন অনুষ্ঠানে বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

সরকারপ্রধান বলেন, ‘কোভিড বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক মন্দা সৃষ্টি করেছে। এর মধ্যে আবার ‘মড়ার ওপর খাঁড়ার ঘা’ হয়ে এসেছে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ। যুদ্ধের সঙ্গে আবার নিষেধাজ্ঞা, পাল্টা নিষেধাজ্ঞা। যার ফলে আজকে আন্তর্জাতিকভাবে মুদ্রাস্ফীতি বেড়েছে।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘ন্যাশনাল ডিফেন্স কোর্স-২০২২’ ও ‘আর্মড ফোর্সেস ওয়ার কোর্স-২০২২’-এ অংশগ্রহণকারী কর্মকর্তাদের সঙ্গে গ্রুপ ছবিতে অংশ নেন। ছবি: ফোকাস বাংলা
তিনি বলেন, ‘আন্তর্জাতিকভাবে উন্নত দেশ বা ধনী দেশগুলো অর্থনৈতিকভাবে বিপর্যস্ত, তারা হিমশিম খাচ্ছে। তারা বিদ্যুৎ-জ্বালানি সাশ্রয়ে ব্যবস্থা নিচ্ছে, খাদ্যপণ্যের দাম বাড়ছে, রিজার্ভ কমে যাচ্ছে। সেই অবস্থায় আমি বলতে পারি যে, বাংলাদেশকে এখনো স্থিতিশীল অবস্থায় রাখতে আমরা সক্ষম হয়েছি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘নানা কথা বলে ভয়ভীতি দেখিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা একটা মহল করে যাচ্ছে। কিছু কথা ব্যাপকভাবে প্রচার হচ্ছে নানাভাবেই, অনেকে বিভ্রান্ত হতে পারেন। সেখানে আমি বলবো যে, বিভ্রান্ত হওয়ার মতো কিছু নেই। একটা কথা মনে রাখতে হবে, বাংলাদেশের এটা হচ্ছে দুর্ভাগ্য যে, যখনই একটা শান্তিপূর্ণ পরিবেশে দেশটা অগ্রগতির দিকে এগিয়ে যায় সবার কাছে তা পছন্দ হয় না। এটা হচ্ছে বাস্তব।’

আওয়ামী লীগ সরকারের টানা তিন মেয়াদে দেশের প্রবৃদ্ধি ৮ ভাগ পর্যন্ত উন্নীত করা সম্ভব হয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যখন আমি সরকার গঠন করেছিলাম ১৯৯৬ সালে, তখন আমি রিজার্ভ পেয়েছিলাম মাত্র ২.৫ বিলিয়ন ডলার। দ্বিতীয়বার যখন সরকার গঠন করি ২০০৯-এ, তখন পেয়েছি মাত্র ৫ বিলিয়ন ডলার। আমরা সেই ৫ বিলিয়নকে ৪৮ বিলিয়নে উন্নীত করতে সক্ষম হয়েছি।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজের পক্ষ থেকে উপহার তুলে দেন কলেজের কমান্ড্যান্ট লেফটেন্যান্ট জেনারেল মো. আকবর হোসেন। ছবি: ফোকাস বাংলা
যুদ্ধের প্রভাবে আন্তর্জাতিক বাজারে সব কিছুর দাম বেড়ে যাওয়ার প্রসঙ্গ সামনে এনে সরকারপ্রধান বলেন, ‘আমাদের ডলার খরচ করতে হয়েছে, রিজার্ভ খরচ করতে হয়েছে। আমরা করেছি। কিন্তু তার পরও আমাদের আমদানি-রপ্তানি বৃদ্ধি পেয়েছে, বিনিয়োগ হচ্ছে। সার থেকে শুরু করে সব কিছু আমাদের কৃষকদের কাছে খুব স্বল্পমূল্যে দিচ্ছি।’

জমি অনাবাদি না রেখে উৎপাদনে আবারও তাগিদ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী যে মন্দাটা দেখা যাচ্ছে, বিশেষ করে খাদ্যমন্দা, সেটা যেন আমাদের দেশে কখনো না আসে।’

সবার প্রতি আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের কোনো রকম বিলাসিতা চলবে না। কারণ বিশ্ব অর্থনীতির মন্দার ধাক্কাটা আমাদের ওপর এসে পড়বে এবং পড়েছে। সেটা মাথায় রেখে সবাইকে সাশ্রয়ী হওয়ার জন্য আমি অনুরোধ জানাবো। আমাদের সাশ্রয়ী হয়ে আমাদের দেশ, আমাদের সম্পদ আমাদের রক্ষা করে চলতে হবে।’

সাহস২৪.কম/এসএস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?