স্ত্রী হিসেবে পারিবারিক স্বীকৃতির দাবিতে অনশনে তরুণী

প্রকাশ : ০৩ নভেম্বর ২০২২, ১৬:২০

সাহস ডেস্ক

দীর্ঘ পাঁচ বছরের প্রেম করার পর গোপনে করা বিয়ের পারিবারিক স্বীকৃতি পেতে স্বামীর বাড়িতে পাঁচদিন ধরে অনশন করছেন জেরিন সীমা সোহেলী (১৯) নামে এক তরুণী। লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা উত্তর বাংলা কলেজগেট এলাকার পলাশ মিয়ার ছেলে নাঈম ইসলাম (২৫) এর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা ও মেয়েটির পরিবার জানায়, দীর্ঘ পাঁচ বছর আগে নাঈম একই এলাকার কাঞ্চনশ্বর গ্রামের হতদরিদ্র গাড়িচালক সাইদুল ইসলামের মেয়ে জেরিন সীমা সোহেলীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। এরপর  সাত মাস আগে লালমনিরহাট নোটারী পাবলিকের এফিডেভিট মূলে গোপনে বিয়ে করেন তারা।

পারিবারিক ও সামাজিকভাবে স্বীকৃতি দিয়ে তাকে ঘরে তুলতে সোহেলী চাপ দিলে আজ-কাল বলে সময় ক্ষেপণ করতো থাকেন স্বামী নাঈম। এরই মাঝে বিষয়টি জানাজানি হলে স্বামী নাঈম তার পরিবারের চাপে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন। অবশেষে বাধ্য হয়ে নোটারী পাবলিকের বিয়ের কাগজসহ স্ত্রীর দাবি নিয়ে গত ২৮ অক্টোবর স্বামী নাঈমের বাড়িতে ওঠেন জেরিন সীমা।

নাঈমের পরিবারের সদস্যরা এ বিয়ে প্রত্যাখ্যান করে সীমার ওপর মানসিক নির্যাতন করে বাড়ির উঠানে আটকে রাখেন। বাহিরের গেটে তালা দিয়ে কারও সঙ্গে যোগাযোগ করতে দেননি তারা। সেখানেই স্ত্রীর দাবিতে গত পাঁচদিন ধরে অনশন করছেন সীমা।

জেরিন সীমার বাবা সাইদুল ইসলাম বলেন, আমার দারিদ্র। তাই আমার মেয়েকে স্ত্রীর মর্যাদা দিতে অস্বীকৃতি জানায় নাঈম। আমার মেয়ে শুক্রবার থেকে নাঈমের বাড়িতে  অনশন করছে। আমি এ ঘটনার সুবিচার কামনা করছি।

কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এটিএম গোলাম রসুল বলেন, দুই পরিবারের সঙ্গে কথা হচ্ছে। মেয়েটির দাবিও যৌক্তিক। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা দুই পরিবারকে নিয়ে আপস করতে চেয়েছেন। তারা চেষ্টাও করছেন। তবে বিষয়টি পুলিশের নজরে রয়েছে বলেও জানান তিনি।

সাহস২৪.কম/এএম/এসকে.

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?