এক বছরেও চালু হয়নি ইউনিয়ন ভূমি অফিসের নতুন ভবন

প্রকাশ : ০৩ নভেম্বর ২০২২, ১৬:০৯

সাহস ডেস্ক

সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলার সাচনা গ্রামের নামানুসারে ইউনিয়নের নামকরণ করা হয় সাচনাবাজার ইউনিয়ন। ১৯৬০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় এই ইউনিয়ন। বর্তমানে ২৭টি গ্রামের সমন্বয়ে ২৬ হাজার ৪৯ জন লোক বাস করছে ৩৩.১০ বর্গ কি.মি. আয়তনে। সাচনা বাণিজ্য কেন্দ্রসহ ৪টি বাজার, ৫টি ছোট বড় হাওর, ১টি বালু মহাল, ৪টি খেয়াঘাটসহ ৫ হাজার ৫ শত ৬৬ হেক্টর আবাদী জমি, ২ শত ৪৬ হেক্টর অনাবাদী, একফসলী বোর জমি রয়েছে ৫ হাজাট ২ শত ৯২ হেক্টর, দুই ফসলী জমি রয়েছে ২ শত ৭৬ হেক্টরসহ একটি ইউনিয়নের সকল গুণাবলী ও বৈশিষ্ট্য। প্রতি বছরে সরকারকে প্রতি ইউনিয়নের নির্ধারিত হিসাবের চেয়েও অনেক গুণ বেশি রাজস্ব প্রদান করে আসছে।

সুরমা নদীর পশ্চিম তীরে অবস্থিত জামালগঞ্জ উপজেলা সদরের উপকণ্ঠে উপজেলা ভূমি অফিস সংলগ্ন সাচনা ইউনিয়ন ভূমি অফিস স্থাপিত হয়। যার ফলে উপজেলার এই ইউনিয়নের জনগণ সুরমা নদী পাড়ি দিয়ে সময় ও অনেক অর্থ অপচয় করে উপজেলা সদরে ভূমি সংক্রান্ত কাজে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। দীর্ঘদিনের আবেদন-নিবেদনের পর সাচনা বাজার ইউনিয়ন পরিষদের দক্ষিণ পাশে সরকার নির্মাণ করেছে সাচনা ইউনিয়ন ভূমি অফিস।

ভবনটির ভেতরে বিগত বন্যার সময়ে পানি প্রবেশ করায় ময়লা আর্বজনাসহ পড়ে আছে শেওলার স্তূপ, দ্বিতীয় তলার ছাদ চুইয়ে পানি পড়ে দেয়ালে শেওলা পড়েছে। ইউনিয়নবাসীর দুর্ভোগ লাঘবে ইউনিয়ন ভূমি অফিসটি দ্রুত চালুর দাবি উঠেছে।

সাচনা বাজার বণিক সমিতির সভাপতি চিত্তরঞ্জন পাল ও সম্পাদক আসাদ আল আজাদ বলেন, নতুন ভবনে কার্যক্রম চালু না হওয়ায় আমরা ভোগান্তির শিকার হচ্ছি। নতুন ভবন চালু করে আমাদেরকে হয়রানিমুক্ত করা হোক।

সাচনা বাজার ইউনিয়ন ভূমি অফিসের ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা বিজন কানন দাস বলেন, ভবন নির্মাণকাজ শেষ করে ১ বছর আগেই হস্তান্তর করা হয়েছে। কিন্তু জেলা প্রশাসন থেকে কোন আসবাবপত্র এখনও না আসায় ব্যবহারের উপযোগী হয়ে উঠেনি।

সাহস২৪.কম/এএম/এসকে.

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?