সেলিম খানকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

প্রকাশ : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩:৪৭

নিজস্ব প্রতিবেদক
ছবি : সেলিম খান।

অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় চাঁদপুর সদরের লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান সেলিম খানকে আত্মসমর্পনের নির্দেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগের চেম্বার আদালত। আগামী ২৭ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তাঁকে আত্মসমর্পন করতে বলা হয়েছে। 

মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) ছয়দিন আগে হাইকোর্টের দেওয়া চার সপ্তাহের আগাম জামিন স্থগিত করে এ আদেশ দেন চেম্বার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম। গত ১৪ সেপ্টেম্বর এ মামলায় হাইকোর্ট থেকে চার সপ্তাহের আগাম জামিন পান চেয়ারম্যান সেলিম খান।

জামিনের চার সপ্তাহের মধ্যে তাঁকে ঢাকা মহানগর জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়েছিল।  
কিন্তু তার আগেই আগাম জামিন স্থগিত চেয়ে চেম্বার আদালতে আবেদন করে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক। আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো. খুরশিদ আলম খান। সেলিম খানের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মোমতাজ উদ্দিন ফকির।

প্রথমে এ মামলায় আগাম জামিন চেয়ে আবেদন করলে হাইকোর্ট সেলিম খানকে তিন সপ্তাহের মধ্যে সংশ্লিষ্ট আদালতে আত্মসমর্পনের নির্দেশ দেন। ওই আদেশে মামলা নম্বর ভুল থাকায় আত্মসমর্পন না করে হাইকোর্টে নতুন করে আগাম জামিন চেয়ে আবেদন করেন সেলিম খান। সে আবেদনে শুনানির পর গত ১৪ সেপ্টেম্বর হাইকোর্ট তাকে চার সপ্তাহের আগাম জামিন দেন। দুদকের আবেদনে সে জামিনই স্থগিত করলেন চেম্বার আদালত।  

৩৪ কোটি ৫৩ লাখ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে গত ১ সেপ্টেম্বর মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। মামলায় সেলিম খানের মোট ৩৮ কোটি ৬৮ লাখ টাকার সম্পদের উল্লেখ করা হয়। দুদকের সহকারী পরিচালক আতাউর রহমান বাদী হয়ে সমন্বিত জেলা কার্যালয় ঢাকা-১ এ মামলাটি করেন।  

মামলায় বলা হয়, সেলিম খান অবৈধ উপায়ে ৩৪ কোটি ৫৩ লাখ ৮১ হাজার ১১৯ টাকার সম্পদ তাঁর জ্ঞাত আয়ের সঙ্গে অসংগতি পূর্ণভাবে অর্জন করে নিজ ভোগদখলে রেখেছেন। এ ছাড়া তিনি ৬৬ লাখ ৯৯ হাজার ৪৭৭ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করেছেন। সেলিম খান যে সম্পদ বিবরণী দাখিল করেছেন, তা যাচাই-বাছাই করে অসংগতি পাওয়া গেছে। তাঁর বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন আইন ২০০৪ এর ২৬ (২) ও ২৭ (১) ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে।

সাহস২৪.কম/এসএস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?