রাজধানীতে জঙ্গিবাদবিরোধী র‍্যালি

প্রকাশ : ৩০ জুন ২০২২, ১৫:০৮

সাহস ডেস্ক

 

বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রাকে ঠেকিয়ে রাখতে কিছু অসাধু চক্র জঙ্গিবাদের মাধ্যমে তাদের ঘৃণ্য অপচেষ্টা করছে। যা দেশকে অস্থিতিশীল করে বহির্বিশ্বের কাছে দেশের মর্যাদা ক্ষুণ্ন করছে। এ সম্পর্কে সাধারণ মানুষের ও শিক্ষার্থীদের কাছে সচেতনতার বার্তা ছড়িয়ে দিতে ‘জঙ্গিবাদবিরোধী র‍্যালি’র আয়োজন করেছে ঢাকা কলেজ। বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) বেলা ১১টায় কলেজের উচ্চমাধ্যমিক, স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে এ র‍্যালি অনুষ্ঠিত হয়।

জঙ্গিবাদবিরোধী র‍্যালিতে শিক্ষার্থীদের ‘জঙ্গীবাদকে না বলুন, সুন্দর দেশ গড়ুন’, ‘জঙ্গিবাদ মুক্ত থাকুন, আলোকিত দেশ গড়ুন’, ‘সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ নয়, শান্তি চাই, শঙ্কামুক্ত জীবন চাই’, ‘সবাই মিলে সচেতন থাকুন, জঙ্গিবাদ দমনে সহযোগিতা করুন’ ইত্যাদি বিভিন্ন স্লোগান ও প্লে কার্ড প্রদর্শন করতে দেখা যায়। কলেজের শহীদ মিনার চত্বর থেকে শুরু হয়ে প্রশাসনিক ভবনের সামনে এসে শেষ হয় র‍্যালিটি।

এ সময় র‍্যালিতে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক এ টি এম মইনুল হোসেন, প্রাণিবিদ্যা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক শরীফা সুলতানা। র‍্যালি শেষে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন তারা।

ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ অধ্যাপক এ টি এম মইনুল হোসেন বলেন, ‘জঙ্গিবাদ একটি বৈশ্বিক সমস্যা। বিভিন্ন সময়ে বাংলাদেশেও এটি মাথাচাড়া দিয়ে ওঠার চেষ্টা করেছে। বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রাকে ঠেকিয়ে রাখতে অসাধু চক্র তাদের ঘৃণ্য অপচেষ্টা করছে। এই অসাধু চক্রই জঙ্গিবাদের মাধ্যমে দেশকে অস্থিতিশীল করতে চায়। বহির্বিশ্বের কাছে দেশের মর্যাদা ক্ষুণ্ন করতে চায়। এসব ব্যাপারে শিক্ষার্থীদের সচেতন থাকতে হবে। জঙ্গিবাদ সম্পর্কে সাধারণ মানুষের কাছে সচেতনতার বার্তা ছড়িয়ে দিতে হবে।’

শিক্ষার্থীরা সচেতন হলে জঙ্গিবাদের সমস্যা মোকাবিলা সম্ভব উল্লেখ করে প্রাণিবিদ্যা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক শরীফা সুলতানা বলেন, ‘জঙ্গি সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন ঘটনা পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, সাধারণ শিক্ষার্থী এবং তরুণ প্রজন্মের অনেককে ধর্মের ভুল ব্যাখ্যা করে প্রতারকরা এসবে যুক্ত করেছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের সচেতন করলে তারা ভুলেও জঙ্গিবাদ সম্পর্কিত কোনো বিষয়ের সঙ্গে নিজেদের যুক্ত করবে না। তাই দেশের প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নিয়মিত জঙ্গিবাদ, মাদক, সন্ত্রাসবিরোধী সভা, সমাবেশ, র‍্যালি ও সিম্পোজিয়াম পরিচালনা করা উচিত বলেও মন্তব্য করেন তিনি।’

এ ছাড়াও র‍্যালিতে উপস্থিত ছিলেন- ইংরেজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক পুরঞ্জয় বিশ্বাস, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক মো. সাইফুল ইসলাম চৌধুরী, উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ইদ্রিস হাওলাদার, পরিসংখ্যান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. আলতাফ মাহমুদ, সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আ ক ম রফিকুল আলম, অর্থনীতি বিভাগের প্রভাষক শামীম আহম্মেদসহ অন্য শিক্ষকরা।

সাহস২৪.কম/এআর/এসকে.

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?