থানায় ধর্ষণকাণ্ড: সেই পুলিশ পরিদর্শক কারাগারে

প্রকাশ : ২৩ মে ২০২২, ১৯:০৭

সাহস ডেস্ক

খুলনার আলোচিত ধর্ষণ মামলার আসামি ও সাবেক রেলওয়ে পুলিশ পরিদর্শক উছমান গনি পাঠানকে কারাগারে প্রেরণ করেছেন আদালত। রবিবার (২২ মে) বিকালে খুলনা মহানগর দায়রা জজ আদালতে উপস্থিত হয়ে জামিনের আবেদন করলে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক মাহমুদা খাতুন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ওই আদালতের বেঞ্চ সহকারী আবুল কালাম আজাদ।

আদালত সূত্র ও মামলার বিবরণী থেকে জানা যায়, ভুক্তভোগী ২০১৯ সালের ৮ আগস্ট বৃহস্পতিবার যশোরে ভাইয়ের বাড়িতে বেড়াতে যান। পরের দিন কন্যাসন্তান সহ যশোর থেকে ট্রেনে করে খুলনার উদ্দেশ্যে রওনা দেন। ট্রেনের টয়লেট থেকে বের হওয়ার সময় একজন নারী পুলিশসহ আরও দুজন পুলিশ তাকে কোন কিছু না বলে আটক করে। ওই সময় উপস্থিত নারী পুলিশ সদস্য তার গায়ে হাত তোলেন। এতে তার বাম চোখ কিছুটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

দুপুরের দিকে ট্রেন খুলনায় পৌঁছালে তাকে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়। রাতে পুলিশ পরিদর্শক উছমান গনি থানায় আসলে হাজত থেকে বের করে তাকে অফিস রুমে নেওয়া হয়। তখন পুলিশ কর্মকর্তা অন্যান্য পুলিশ সদস্যকে বাইরে রেখে দরজা বন্ধ করে দিতে বলে।

এ সময় পুলিশ কর্মকর্তা তার শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিতে থাকে এবং এক সময়ে তাকে ফ্লোরে ফেলে দেয়। পরে চিৎকার করলে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। রাত ১টার দিকে আবারও থানায় আসেন ওই পুলিশ কর্মকর্তা। রেলওয়ে থানার এক ডিউটি অফিসার রাতে চোখ বেধে তাকে ওসির রুমে দিয়ে আসেন। চোখের বাধন খোলার পর ওই নারীকে ধর্ষণ করেন খুলনা জিআরপি থানা পুলিশ পরিদর্শক উছমান গনি পাঠান। পরে হুমকি দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয় তাকে। এ ঘটনায় খুলনা রেলওয়ে থানার পুলিশ পরিদর্শকসহ আরও কয়েকজন পুলিশ সদস্যের নামে রেলওয়ে থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী ওই নারী।

পরে ২০২০ সালের ১৬ জানুয়ারি উছমান গনির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে পুলিশ। তবে অন্যান্য পুলিশ কর্মকর্তারা এ ঘটনার সাথে জড়িত নয় বলে অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়। বর্তমানে মামলাটি আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।

সাহস২৪.কম/এএম/এসটি/এসকে.

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?