চলন্ত বাসে ডাকাতি, গণধোলাইয়ে ডাকাত নিহত

প্রকাশ : ১৭ মে ২০২২, ২০:৫১

সাহস ডেস্ক

সাভারের আশুলিয়ায় চলন্ত বাসে ডাকাতির সময় গণধোলাইয়ের শিকার হয়ে নিহত হয়েছেন এক ডাকাত। এই ঘটনায় এক পুলিশ সদস্যসহ চার জন আহত হয়েছেন। সোমবার (১৬ মে) রাত পৌনে ১০টার দিকে আশুলিয়ার নবীনগর সেনা শপিং কমপ্লেক্সের সামনে সাভার পরিবহণের একটি বাসে এ ঘটনা ঘটে।

বাসে থাকা যাত্রীরা জানান, ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে সাভার পরিবহণের একটি বাস বাইপাইল থেকে সাভারের দিকে রওনা হয়। বাসটি নবীনগরে সেনা মার্কেটের সামনে পৌঁছানোর পর একজন ডাকাত হঠাৎ লাফ দিয়ে ছুরি নিয়ে ড্রাইভারের কাছে গিয়ে বসে এবং ড্রাইভারকে বাস থামাতে নিষেধ করে। এ সময় এক যাত্রী বাস থেকে লাফ দিয়ে বাইরে পড়ে যায়। পরিস্থিতি দেখে এক নারী যাত্রী নেমে যেতে চাইলে তাকে ডাকাতেরা মারধর করে বাস থেকে ফেলে দেয়। এ সময় ডাকাতেরা আরেক যাত্রীর পায়ের রগ কেটে দেয়। ডাকাতির ঘটনা টের পেয়ে পুলিশ চলতি বাসে উঠে এক ডাকাতকে আটক করে। এ সময় ওই ডাকাত সদস্য বাসের যাত্রীদের গণধোলাইয়ের শিকার হন। ডাকাত সদস্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

প্রত্যক্ষদর্শী ইমরান খান বলেন, সাভার পরিবহণের একটি বাস সেনা মার্কেটের সামনে এলে এক নারীকে বাস থেকে পড়ে যেতে দেখা যায়। এ সময় বাসের যাত্রীরা ডাকাত ডাকাত বলে চিৎকার করছিল। মার্কেটের সামনে ট্রাফিক পুলিশের এসআই হেলাল ডিউটি করছিলেন। তিনি নারীকে ফেলে দেওয়া দেখে দৌড়ে একাই বাসে গিয়ে উঠেন। পরে ছুরি হাতে থাকা একজনকে জাপটে ধরে আটক করে ফেলেন। এ সময় ডাকাতের সঙ্গে ধস্তাধস্তির সময় এসআই হেলাল আহত হন। বাকি ডাকাত সদস্যরা দ্রুত পালিয়ে যায়। এ বিষয়ে আশুলিয়া থানার এসআই আসলামুজ্জামান বলেন, পুলিশ ওখানে গিয়ে গণধোলাইয়ের শিকার এক ডাকাতকে উদ্ধার করে রাতেই ঢাকা হাসপাতালে পাঠিয়েছে। মঙ্গলবার (১৭ মে) সকালে গণধোলাইয়ের শিকার হওয়া ডাকাতের মৃত্যু হয়েছে। নিহত ডাকাতের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

সাহস২৪.কম/এএম/এসটি/এসকে.

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?