আদালতে পিকে হালদার, আইনি প্রক্রিয়ায় ফেরত পাঠাবে ভারত

প্রকাশ : ১৭ মে ২০২২, ১৯:১৭

সাহস ডেস্ক

বাংলাদেশি ব্যবসায়ী প্রশান্ত কুমার (পিকে) হালদারকে মঙ্গলবার (১৭ মে) আদালতে তুলবে ভারতের তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। রিপোর্টটি তৈরি করা অব্ধি কলকাতার একটি আদালতে হাজির করে তার রিমান্ড বাড়ানোর আবেদন করা হবে বলে জানা যায়। ব্যাংকের সিনিয়র কর্মকর্তা হিসেবে পরিচিত প্রশান্ত কুমার (পিকে) হালদারকে আইনি প্রক্রিয়ার মধ্যমেই দেশে ফেরত পাঠানো হবে- ঢাকায় নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী জানান, "তবে তাকে ভারত থেকে ফেরত আনতে সময় লাগতে পারে।" শুক্রবার (১৩ মে) পশ্চিমবঙ্গে ইডির অভিযানে গ্রেপ্তার হওয়া হালদার ও তার দুই সহযোগীর তিন দিনের রিমান্ড মঙ্গলবার শেষ হয়েছে।

সূত্রে জানা যায়, রিমান্ড বাড়ানোর ক্ষেত্রে আরও জিজ্ঞাসাবাদের জন্যে হালদারকে দেশের প্রধান তদন্ত সংস্থা সেন্ট্রাল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের কাছে হস্তান্তর করতে চায় ইডি। দেশে দুর্নীতি দমন কমিশন কর্তৃক অর্থ পাচার ও অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনার পর থেকে পলাতক ছিলেন এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের সাবেক এমডি পিকে হালদার। তার সাথে পলাতক ছিলেন- তার দুই সহযোগী প্রীতিশ কুমার হালদার ও প্রাণেশ কুমার হালদারও। শুক্রবার ওপার বাংলার উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায় অভিযানে ওই তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। দেশটির অধিদপ্তর এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘পিকে হালদার জালিয়াতি করে শিবশঙ্কর হালদার নামে একজন ভারতীয় নাগরিক হিসাবে নিজেকে পরিচয় দিয়ে আসছিলেন।’অধিদপ্তর জানিয়েছে, এই তিনজনই জালিয়াতি নথির ভিত্তিতে ভারতে কোম্পানিটি স্থানান্তর করেছে।

এদিকে পররাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে পিকে হালদারের বিষয়ে কথা হয়েছে বলে জানান ঢাকায় নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার। “এটি উভয়পক্ষের নিয়মিত সহযোগিতার একটি অংশ। একটি আইনি প্রক্রিয়ার বিষয়। আমাদের কাছে যে ধরনের তথ্য রয়েছে, তার ভিত্তিতে একটা সময় ঢাকাকে জানানো হবে। তবে আপনাদের বুঝতে হবে, এটি কিন্তু  কোনো বড়দিনের কার্ড বিনিময় নয়। এ ধরনের বিষয়ে আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়। সেটি ধীরে ধীরে হতে দিন। এনিয়ে আমরা বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করছি” বলেন বিক্রম দোরাইস্বামী। তিনি বলেন, “যে কোনো ধরনের অপরাধমূলক তৎপরতা প্রতিরোধের লক্ষ্যে সহযোগিতা রয়েছে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে। বাংলাদেশ এরই মধ্যে ভারতের সংশ্লিষ্ট সংস্থাকে তথ্য দিয়েছে। আমরা সেটা যাচাই-বাছাই করছি। এ ক্ষেত্রে পুরোপুরি আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হবে। অপরাধীদের দমনে বাংলাদেশ ও ভারত সহযোগিতা অব্যাহত রেখেছে।”

সাহস২৪/এসটি/এসকে.

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?