রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অগুন: ১২০০ বসতি পুড়ে ছাই

প্রকাশ : ০৯ জানুয়ারি ২০২২, ২১:৫২

সাহস ডেস্ক

কক্সবাজারের উখিয়ার শফিউল্লাহ কাটা ক্যাম্প ১৬নং রোহিঙ্গা শিবিরে আজ সন্ধ্যায় ভয়াবহ আগুন লেগেছে। এ ঘটনায় অন্তত ১২০০টি বসতি পুড়ে গেছে। রবিবার (৯ জানুয়ারি) বিকেল ৫টার দিকে রোহিঙ্গা শিবিরের বি-ব্লকে এ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত। দীর্ঘ দুই ঘণ্টা পর সন্ধ্যা ৭টার দিকে ফায়ার সার্ভিস আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

ফায়ার সার্ভিস, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবীদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। তবে রাত আটটা পর্যন্ত হতাহত ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা যায়নি। অগ্নিকাণ্ডে অন্তত ৩০ হাজার মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েছে। তাদের বিভিন্ন কেন্দ্রে সরিয়ে আনা হচ্ছে।

রোহিঙ্গা শিবিরে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ৮ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়েনের (এপিবিএন) অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামরান হোসেন বলেন, শফিউল্লাহ কাটা রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বি/১ ব্লকের বাসিন্দা মোহাম্মদ আলীর ঘরে গ্যাসের চুল্লি থেকেই আগুনের সূত্রপাত হয়। এরপর দ্রুত আগুন চারদিকের বসতিতে ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে এপিবিএন, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবীদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে। তবে হতাহতের তথ্য পাওয়া যায়নি।

তবে ভয়াবহ এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় রোহিঙ্গাদের পাশাপাশি স্থানীয় জনগোষ্ঠীর ১০টি বসতবাড়িও পুড়ে ছাই হয়েছে। তাদের জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে খাবার ও শীতের কাপড়চোপড় দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন উখিয়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) তাজ উদ্দিন

অগ্নিকাণ্ডে যাদের ঘরবাড়ি পুড়ে গেছে কিংবা গৃহহীন হয়েছে, তাদের শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (আরআরআরসি) কার্যালয়ের মাধ্যমে আশ্রয়শিবিরের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে রাখার ব্যবস্থা হয়েছে জানিয়ে তাজ উদ্দিন আরো জানান, রাতের মধ্যে গৃহহীনদের সরিয়ে আনা হবে। সেখানে তাদের শীতের কাপড়চোপড়সহ রান্না করা খাবার সরবরাহ করা হচ্ছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?