বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে নিরাপত্তামূলক পদক্ষেপ নেওয়া হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশ : ০৯ জানুয়ারি ২০২২, ২০:৪৭

সাহস ডেস্ক

অমিক্রনের কারণে স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত দিয়ে ভ্রমণ নিরুৎসাহিত করা হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। তিনি বলেছেন, স্বাস্থ্য ইস্যুর দিকটি বিবেচনা করে, আমাদের জনগণের সুরক্ষায় সীমান্তে অধিকতর নিরাপত্তামূলক পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

রবিবার (৯ জানুয়ারি) ঢাকায় কূটনীতিকদের জন্য কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের বুস্টার ডোজ উদ্বোধন শেষে একথা বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। রাজধানীর শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার ইনস্টিটিউটে এখন কূটনৈতিকরা কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের বুস্টার ডোজ নিতে পারবেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সরকার এই মুহূর্তেই লকডাউনের কথা ভাবছে না। কারণ অমিক্রনের মৃত্যুহার অনেক কম। তবে কোভিড-১৯ এর এই নতুন ধরনের বিস্তার ঠেকাতে সরকার সব ধরনের যানবাহনে যাত্রীর সংখ্যা সীমিত করার বিষয়টি বিবেচনা করছে।

অমিক্রন ও স্বাস্থ্য সুরক্ষার ব্যাপারে তিনি বলেন, সরকার সব জায়গাতেই যাত্রী সংখ্যা কমাতে পদক্ষেপ নেবে, আর আগেও এমনটি করা হয়েছে। আমরা সেই পদ্ধতি অনুসরণ করব।

ড. মোমেন খুশি যে, তারা ঢাকায় কূটনীতিক ও তাদের ওপর নির্ভরশীলদের জন্য এই বিশেষ ভ্যাকসিন কর্মসূচির ব্যবস্থা করতে পেরেছেন। তিনি বলেন, সরকার অত্যন্ত কৃতজ্ঞ যে, অনেক দেশ আমাদের সহায়তায় এগিয়ে এসেছে এবং কোভ্যাক্স এর আওতায় ভ্যাকসিনের ডোজ অনুদান দিয়েছে। সরকার তার সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু করোনা ভাইরাসের নতুন ধরন অমিক্রন দেখা দেওয়ায় এখনো অনেক পথ বাকি রয়েছে। এখন পর্যন্ত, আমরা সঠিক পথেই আছি, কিন্তু আমাদের নিজেদেরকে রক্ষা করতে হবে। আমি সকলের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি যে- আপনারা যতটা সম্ভব স্বাস্থ্য সুরক্ষা-বিধি মেনে চলুন।

বাংলাদেশে নিযুক্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত চার্লস হোয়াইটলি কূটনীতিকদের জন্য কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের বুস্টার ডোজের ব্যবস্থা করায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে ধন্যবাদ জানান।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?