জেলের মাছ ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ জেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে

প্রকাশ : ০২ জুন ২০২১, ২২:৪৭

সাহস ডেস্ক

মাছের টাকা চাওয়ায় জেলেকে মারপিট করে জোরপূর্বক মাছ নেয়ার অভিযোগ উঠেছে সিরাজগঞ্জ জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল হকসহ নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে।

বুধবার (২ জুন) দুপুরে ভুক্তভোগী জেলে সয়দাবাদ ইউনিয়নের ফুলবাড়ীর চর গ্রামে আমজাদ শেখের ছেলে শফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল হক ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আশিক ইমরানসহ অজ্ঞাত ৪৫/৫০ জনের বিরুদ্ধে সদর থানায় অভিযোগ করেন।

অভিযোগে জানা যায়, গত মঙ্গলবার (১ জুন) দুপুরে সহযোগীদের সাথে নিয়ে যমুনা নদীর ফুলবাড়ি চর এলাকায় বেড়জাল দিয়ে মাছ ধরছিলেন শফিকুল। এ সময় যমুনার চরে বনভোজনে আসা যুবলীগ নেতা একরামসহ ৪৫/৫০ জন নেতাকর্মী তার কাছে মাছ কিনতে যায়। ৬/৭ হাজার টাকা মূল্যের বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় ১০/১২ কেজি মাছ ডালিসহ তারা জোরপূর্বক নিয়ে নেয়। এ সময় তাদের কাছে মাছের টাকা চাইলে তারা জেলে শফিকুলকে লাথি ও কিল-ঘুষি মারে এবং মাত্র ৩ হাজার টাকা মাটির মধ্যে ফেলে দিয়ে চলে যায়। এ সময় বিবাদীরা দলীয় পরিচয় দেন এবং মাছের দাম নেওয়ার সাধ মিটাইয়া দেবে বলে হুমকি দেয়।

জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল হক বলেন, ‌‘জেলেরা মাছের দাম চেয়েছিল ৪ হাজার টাকা। দরদাম শেষে তিন হাজার টাকা দিয়ে মাছগুলো কেনা হয়েছিল। এখানে কোনো ধরনের জোরজুলুম বা কথা কাটাকাটি হয়নি। আমাদের সঙ্গে খাবার খাওয়ার জন্য জেলেদের দাওয়াত দিয়েছিলাম। কিন্তু কেন কী কারণে অভিযোগ দিয়েছে, তা আমার বোধগম্য হচ্ছে না। হয়তো আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে।’ 

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দীন ফারুকী জানান, মাছের দাম কম দেওয়া নিয়ে যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে এক জেলে লিখিতি অভিযোগ দিয়েছিলেন। পরে বিষয়টি মীমাংসা হয়েছে। 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?