যে ১১টি দেশ থেকে কেউ বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারবে না

প্রকাশ : ০২ জুন ২০২১, ১১:৩২

সাহস ডেস্ক

চলমান করোনা আতংকের মধ্যে বাংলাদেশের শনাক্ত হচ্ছে নিত্য নতুন ভ্যারিয়েন্ট। এর ফলে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে দেশের সরকার। দেশের সাধারণ জনগণকে করোনা ঝুকির হাত থেকে বাঁচাতে যুক্ত হচ্ছে নিষেধাজ্ঞা। সেই নিষেধাজ্ঞার সাথে এবার যুক্ত হলো বিশ্বের ১১ টি দেশ থেকে নতুন করে কেউ প্রবেশ বা বাংলাদেশ থেকে ওই সব দেশের কেউ যাতায়াত করতে পারবে না। 

বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) এর জারি করা সার্কুলার থেকে দেখা যায় নিষেধাজ্ঞাপ্রাপ্ত দেশগুলো হচ্ছে আর্জেন্টিনা, বাহরাইন, বলিভিয়া, ব্রাজিল, ভারত, মালয়েশিয়া, মালদ্বীপ, নেপাল, প্যারাগুয়ে, ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগো ও উরুগুয়ে।

সার্কুলারটিতে স্বাক্ষর করেন বেবিচকের ফ্লাইট স্ট্যান্ডার্ড ও রেগুলেশন্স বিভাগের সদস্য গ্রুপ ক্যাপ্টেন চৌধুরী এম জিয়া-উল কবির।

সার্কুলারে নিষিদ্ধ ১১ দেশকে ‘গ্রুপ-এ’ ক্যাটাগরি উল্লেখ করে বেবিচক জানায়, দেশগুলো থেকে কোনো যাত্রী বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারবে না। এমনকি বাংলাদেশ থেকে এসব দেশে কেউ যেতেও পারবে না। তবে দেশগুলোতে অবস্থানরত বাংলাদেশি ভিজিটররা সেসব দেশের বাংলাদেশি দূতাবাসের বিশেষ অনুমতি নিয়ে বাংলাদেশে আসতে পারবেন। সেক্ষেত্রে তাদের বাংলাদেশে পা রাখার আগেই ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনের জন্য নিজ খরচে সরকার নির্ধারিত হোটেল বুকিং করতে হবে।

এছাড়াও সার্কুলারে আরও ৮টি দেশকে ‘গ্রুপ-বি’ ক্যাটাগরি উল্লেখ করা হয়েছে। এই ক্যাটাগরির ৮টি দেশ থেকে বাংলাদেশে আসা যাত্রীদের জন্য আরোপ করা হয়েছে কিছু বিধিনিষেধ। দেশগুলো হচ্ছে- বেলজিয়াম, চিলি, কলম্বিয়া, কোস্টারিকা, ডেনমার্ক, গ্রিস, কুয়েত ও ওমান।

বেবিচক জানায়, কুয়েত ও ওমান থেকে আসা প্রবাসীদের দেশে ফিরেই সরকারি প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন সেন্টারে ৩দিন থাকতে হবে। তিনদিন পর তাদের করোনা টেস্ট করানো হবে। রিপোর্ট নেগেটিভ এলেও তাদের ১১ দিনের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।

করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে দেশে চলমান বিধিনিষেধের সঙ্গে সমন্বয় করে আন্তর্জাতিক রুটের নিয়মিত ফ্লাইট ৫ মে পর্যন্ত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বেবিচক। তবে ১ মে থেকে ৩৮ দেশের সঙ্গে ফ্লাইট চলাচল সীমিত রেখে অন্যান্য দেশের সঙ্গে ফ্লাইট চলাচল স্বাভাবিক রাখা হয়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষের আস্থা এখন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। আপনিও কি তাই মনে করেন?