x

এইমাত্র

  •  লন্ড‌নে নিজ বাসা থেকে অর্থমন্ত্রীর জামাতার মরদেহ উদ্ধার
  •  নুরের বিরুদ্ধে তথ্য-প্রযুক্তি আইনে শাহবাগ থানায় মামলা
  •  হাসপাতালে ভর্তি করোনা রোগীরা দ্রুত মারা যাচ্ছেন: আইইডিসিআর
  •  জ্বর আসেনি, ভালো আছেন খালেদা জিয়া: চিকিৎসক
  •  লকডাউনের মেয়াদ আরও ৭ দিন বাড়তে পারে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া :৪৫ মামলায় ৩৩ হাজার আসামি

প্রকাশ : ০৮ এপ্রিল ২০২১, ১৪:৩২

সাহস ডেস্ক

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গত ২৬ থেকে ২৮ মার্চ হেফাজতে ইসলামের তাণ্ডবের ঘটনায় বুধবার (৭ এপ্রিল) পর্যন্ত মোট ৪৫টি মামলা হয়েছে। এসব মামলায় আসামি করা হয়েছে অজ্ঞাতনামা প্রায় ৩৩ হাজার ৫০০ জনকে। তবে তাদের মধ্যে হেফাজতে ইসলামের কারও নাম নেই।

পুলিশ জানিয়েছে, ভিডিও ফুটেজ ও স্থির ছবি দেখে হামলাকারীদের শনাক্ত করা হচ্ছে। এরইমধ্যে বেশ কয়েকজনকে শনাক্ত করে তাদেরকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। হেফাজত নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে হামলায় জড়িত থাকার অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান বলেন, আমরা অপরাধীদের কোনো দলের দৃষ্টিকোণ থেকে দেখতে চাই না। আমরা অপরাধীকে অপরাধী হিসেবেই বিবেচনা করতে চাই। কে কোন দলের তা বিবেচ্য না। অপরাধী হিসেবেই তাদেরকে আইনের আওতায় আনব।

তিনি আরও বলেন, জেলায় যত জায়গায় তাণ্ডব হয়েছে সেগুলোর ভিডিও ফুটেজ যথাসম্ভব সংগ্রহ করেছি। আমরা সেগুলো দেখে ও বিশ্লেষণ করে অপরাধীদের ধরব। ইতোমধ্যে ভিডিও ফুটেজের ভিত্তিতে আমরা কয়েকজন অপরাধীকে ধরেছি। ভিডিও ফুটেজ দেখে সুনির্দিষ্টভাবে আমরা অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেব।

জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ইমতিয়াজ আহাম্মেদ বলেছেন, দায়ের হওয়া ৪৫টি মামলার মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানায় ৪০টি, আশুগঞ্জ থানায় দুটি, সরাইল থানায় দুটি ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আখাউড়া রেলওয়ে থানায় একটি মামলা রয়েছে।

পুলিশ ও মামলার নথিপত্র সূত্রে জানা গেছে, গত ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ঘটে যাওয়া তাণ্ডবে ৪৫টি মামলার মধ্যে সদর থানায় ৪০টি, আশুগঞ্জ থানায় ২টি, সরাইল থানায় ২টি ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশনে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় আখাউড়া রেলওয়ে থানায় ১টি মামলা করা হয়। ৪৫ টির মধ্যে ৬টি মামলায় ১৩৭ জনের নাম উল্লেখ করা হয়। বাকি সবাই ‘অজ্ঞাতনামা দুষ্কৃতিকারী। কোনও কোনও মামলায় ‘অজ্ঞাতনামা কওমি মাদ্রাসাছাত্র-শিক্ষক ও তাদের অনুসারী দুষ্কৃতিকারীদের’ কথা উল্লেখ করা হয়। তবে কোনও মামলাতেই হেফাজতের কোনও নেতাকর্মীর নাম নেই।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত