x

এইমাত্র

  •  তিন পার্বত্য জেলায় সেনাবাহিনীর ছেড়ে যাওয়া ক্যাম্পে পুলিশ মোতায়েন করা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
  •  মিয়ানমারে বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি, নিহত ৬
  •  ইউপি নির্বাচনে অংশ নেবে না বিএনপি: ফখরুল

রেডিও অনুষ্ঠানের সূত্রে মিলল খোঁজ

১২ বছর আগে নিখোঁজ নাটোরের শিশু রিফাত ফিরে গেল বাবা-মা'র নিকট

প্রকাশ : ০৬ জানুয়ারি ২০২১, ১৮:৫২

চাঁপাইনবাবগঞ্জে আদালতের নির্দেশে ১২ বছর পূর্বে ২০০৯ সালে নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার আলিমনগর গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে নিখোঁজ ৬ বছরের শিশু রিফাত ফিরে গেছে তার বাবা-মা'র নিকট। একটি রেডিও অনুষ্ঠানের সূত্রে ছেলের সন্ধান পান তার বাবা-মা। 

গত সোমবার(৪ জানুয়ারী) চাঁপাইনবাবগঞ্জের জেলা ও দায়রা জজ এবং শিশু আদালতের বিচারক মোহা.আদীব আলী শনাক্তের পর রিফাতের মায়ের আবেদনের প্রেক্ষিতে এই আদেশ দেন। বর্তমানে রিফাত ১৯ বছরের তরুন। সে রাজশাহী সরকারী শিশু পরিবারে থেকে উড ট্রেডে পড়াশোনা করে। আগামী বছর সে এসএসসি পরীক্ষা দিবে।

রিফাত, তার পিতা জাহাঙ্গীর আলম(৪০) ও মা রুপালী বেগমের(৩৬) সাথে আলাপ করে জানা গেছে, বাড়ির নিকটবর্তী মালঞ্চ রেল স্টেশন থেকে ট্রেনে উঠে হারিয়ে যায় সে সময় ২য় শ্রেণিতে পড়ুয়া রিফাত। তখন সে বাবা-মা ও গ্রামের নাম ছাড়া কিছু বলতে পারত না। এরপর তার বাবা-মা  থানায় ডায়রী সহ অনেক খুজেও রিফাতের আর সন্ধান পান নি। 

পাবনার চাটমোহর স্টেশনে তাকে খুঁজে পায় রাজশাহীর গোদাগাড়ীর এক ব্যবসায়ী। তিনি তাকে নিজ বাড়িতে নিয়ে নিয়ে গিয়ে কাজে লাগিয়ে দেন। রিফাত কয়েক বছর পর সেখান থেকে চলে গিয়ে গোদাগাড়ীর প্রেমতলী এলাকার একটি দোকানে কাজ নেয়। সেখানে তার পরিচয় হয় চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের বাসিন্দা চাকুরীজীবী এক নারীর সাথে। তিনিও তাকে নিজ বাড়িতে নিয়ে এসে কাজে লাগিয়ে দেন। কিন্তু ২০১৪ সালে ওই মহিলা রিফাতের বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ এনে তাকে সদর থানায় সোপর্দ করেন। থানা কর্তৃপক্ষ সাধারণ ডায়েরি করে আদালতের মাধ্যমে তাকে রাজশাহীর সেফ হোমে পাঠায়। সেফ হোম থেকে তার ঠাঁই হয় পাশের শিশু পরিবারের।

এদিকে শিশু পরিবারে থাকা রিফাত তার হারিয়ে যাওয়ার গল্প ও বাবা-মা'র নিকট ফিরে যাওয়ার আকাঙ্খা নিয়ে সাক্ষাৎকার দেয় ঢাকা ৯০.৪ এফএম নামের একটি বেতারে। গত ২০২১ সালের ২৯ ডিসেম্বর রিফাতের কাহিনী প্রচার করে ওই বেতারের 'লস্ট এন্ড ফাউন্ড' নামের অনুষ্ঠান। তাদের ফেইসবুক পেজে বিষয়টি জেনে দেশ বিদেশের অনেকেই রিফাতের ঠিকানা খুঁজে বের করার চেষ্টা করেন ও সফল হন। তাদের অনেকেই মোবাইল ফোন নং জোগাড় করে রিফাতের পিতাকে সে দিনই রিফাতের খবর জানান।

এর পরদিনই রিফাতের বাবা-মা রাজশাহী শিশু পরিবারে যোগাযোগ করেন। কর্তপক্ষ তাকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সমাজসেবা অফিসের প্রবেশন কর্মকর্তা আখিনুর রহমানের নিকট পাঠান। আখিনুর এ ব্যাপারে আদালতে আবেদন করেন। আখিনুর রহমান বলেন, আদালত আবেদনে সাড়া দিয়ে শুনানী করে রিফাতকে ডেকে নিয়ে তার মায়ের জিম্মার আদেশ দেন। তবে রিফাত ও তার মাকে কিছু শর্ত দিয়েছেন আদালত। এদিকে একত্রিত হবার পর রিফাত ও তার পিতা-মাতা সংশ্লিস্ট সকলের নিকট কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত