x

এইমাত্র

  •  করোনা: ৭৩ হাজার কোটি টাকার আর্থিক সহায়তা প্যাকেজ ঘোষণা
  •  করোনায় অর্থনীতির প্রভাব নিয়ে সতর্ক করলেন প্রধানমন্ত্রী
  •  তাবলীগ জামাতে আসা মুসল্লি করোনা আক্রান্ত, পৌর এলাকা লকডাউন
  •  আইসোলেশন শেষে স্ত্রী-কন্যার কাছে ফিরেছেন সাকিব
  •  যুক্তরাষ্ট্রের নতুন রেকর্ড, একদিনে প্রাণ গেল ১২২৪ জনের

আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই, দে‌শে যথেষ্ট খাদ্য মজুত আছে

প্রকাশ : ২১ মার্চ ২০২০, ১৪:১২

সাহস ডেস্ক

দেশে সবকিছুর পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আপনারা খাদ্য মজুত কর‌বেন না। জনগণ‌কে কষ্ট দেবেন না। খাদ্য নি‌য়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। দে‌শে যথেষ্ট খাদ্য মজুত আছে।

শনিবার (২১ মার্চ) ঢাকা সিটি কলেজ কেন্দ্র জাতীয় সংসদের ঢাকা-১০ আসনের উপ-নির্বাচনে নিজের ভোট প্রদান শেষে প্রধানমন্ত্রী এ আহ্বান জানান।

শেখ হাসিনা বলেন, আমি খুব পরিষ্কারভাবে বলতে চাই, আমাদের খাদ্যদ্রব্যের কোনো সমস্যা নাই। এখনও ১৭ লাখ মেট্রিক টন খাদ্য সরকারি গুদামেই মজুদ আছে। সাড়ে ৩ লাখ মেট্রিক টন গম আমাদের মজুদ আছে। এছাড়া আমাদের বেসরকারি রাইস মিলের কাছেও প্রচুর পরিমাণে খাদ্য মজুদ আছে।

বেশি পণ্য না কেনার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আতঙ্কগ্রস্ত না হয়ে যার যতটুকু প্রয়োজন সেইটুকু আপনারা সংগ্রহ করেন। এ কারণে বাজারের ওপর চাপ সৃষ্টি করা হলে বাজারে জিনিসের দাম বেড়ে যায়। এতে যার টাকা আছে তিনি হয়তো কিনতে পারছেন কিন্তু যারা সীমিত আয়ের তাদের জন্যতো এত কেনা সম্ভব না, তাদের কষ্ট হয়ে যায়। অন্যকে এভাবে কষ্ট দেয়ার অধিকার কারো নাই

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কিছু মানুষ আতঙ্কিত হচ্ছেন … তারা খাদ্য সামগ্রী সংগ্রহ করছে এবং তাদের বাড়িতে মজুদ করছে … আমি পরিষ্কার করে বলতে চাই, খাদ্য সামগ্রীতে (মজুদে) আমাদের কোনো সমস্যা নেই।

তিনি বলেন, হাসপাতালসহ ঢাকার বিভিন্ন স্থানে গুরুত্বপূর্ণ প‌দে যারা কর্মরত আছেন, তাদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা আমরা করছি। তা‌দের জন্য য‌থেষ্ট প‌রিমাণ স্যা‌নিটাইজারের ব্যবস্থা করা হ‌চ্ছে।

প্রবাসীদের উদ্দেশে শেখ হাসিনা বলেন, পরিবার-পরিজনকে বাঁচাতে তাদের স্বার্থেই আপনি ১৪ দিন কোয়া‌রেন্টাই‌নে থাকেন। আপনাদের দ্বারা কেউ যেন সংক্রমিত না হয়। সে জন্য আপনাদের নিজেদেরকেই সতর্ক থাকতে হবে।

তিনি আরও বলেন, খাদ্যসহ অতিরিক্ত জিনিস কিনে ভীতসন্ত্রস্ত পরিবেশ তৈরি করবেন না। বাজারে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি করা এটা অত্যন্ত গর্হিত কাজ। এভাবে খাদ্য মজুত করলে যারা সীমিত আয়ের মানুষ তাদের জন্য খুব কষ্ট হয়। সাধারণ মানুষকে কষ্ট দেয়ার অধিকার কারও নেই।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত