x

এইমাত্র

  •  গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় নতুন সংক্রমিত ২৬৮৬ জন, মৃত ৩০ জন
  •  সাহেদকে ‘সমাজসেবক’ ভাবতেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের কর্মকর্তারা!
  •  মহামারি করোনাভাইরাসে বিশ্বব্যাপী মৃত্যু ৫ লাখ ৬৩ হাজার, আক্রান্ত ১ কোটি ২৬ লাখেরও বেশি
  •  মায়ের কবরেই সমাহিত হলেন সাহারা খাতুন

'জয় হিন্দ' বলে সমালোচনার মুখে রাবি উপাচার্য

প্রকাশ : ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৫:৩৫

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) অনুষ্ঠিত একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনে 'জয় বাংলা' বলার পর 'জয় হিন্দ' বলে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য অধ্যাপক আব্দুস সোবহান। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও ক্রিয়াশীল ছাত্র সংগঠনের নেতারা বলছেন, এভাবে অন্য একটি দেশের স্লোগান দিয়ে তিনি দেশের সার্বভৌমত্বকে খাটো করেছেন। এটি রাষ্ট্রদ্রোহিতার শামিল।

বৃহস্পতিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে বক্তব্যের শেষ মুহূর্তে ‘জয় বাংলা’র পর ‘জয় হিন্দ’ স্লোগান দেন উপাচার্য এম আব্দুস সোবহান। অনুষ্ঠানে উপস্থিত একাধিক সূত্র এ তথ্য জানায়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষকরা বলছেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের মতো গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকে অন্য একটি দেশের স্লোগান দেয়ার যৌক্তিকতা নেই। এর মাধ্যমে বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে খাটো করে দেখা হয়। একটি দেশের অভ্যন্তরীণ একটি অনুষ্ঠানে অন্য একটি দেশের স্লোগান দেয়াকে রাষ্ট্র বিরুদ্ধাচরণ বলেও মনে করছেন তারা।

এই ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম ফারুকী বলেন, যেহেতু বিষয়টি নিয়ে এখনও সমিতিতে আলোচনা হয়নি তাই সমিতির পক্ষ থেকে আমি কোনও মন্তব্য করবো না।

তিনি বলেন, ক্তিগতভাবে মনে করি, স্বাধীন দেশের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হয়ে অন্য একটি দেশের স্লোগান তিনি দিতে পারেন না। কোন প্রেক্ষাপটে তিনি এ ধরনের স্লোগান দিলেন, আমার বোধগম্য নয়। মানসিকভাবে অসুস্থ না হলে এ ধরনের স্লোগান দেওয়ার কথা না।

অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ইলিয়াস হোসেন বলেন, একজন দায়িত্বশীল ব্যক্তি হয়ে তিনি কখনও এ ধরনের স্লোগান দিতে পারেন না। ‘জয় হিন্দ’ হচ্ছে অখণ্ড ভারতের একটি স্লোগান। বাংলাদেশ একটি স্বাধীন সার্বভোম রাষ্ট্র। সেদিক থেকে অখণ্ড ভারতের স্লোগান দেয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বকে খাটো করা হয় বলে দাবি করেন তিনি।

ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী শহীদুল্লাহ। বিশেষ অতিথি ছিলেন রাজশাহীতে নিযুক্ত সহকারী ভারতীয় হাইকমিশনার সঞ্জীব ভাট্টি, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা ও অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়া।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত